পিছিয়ে পড়বে বাংলাদেশ ও নতুন প্রজম্ম: সালমা ওসমান লিপি

0

স্টাফ করেসপেন্ডন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বঙ্গবুন্ধ শেখ মজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এর ৮৯তম জম্ম বার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ, দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার (২১ আগস্ট) বিকাল ৩ টায় সদর উপজেলার পরিষদের অডিটরিয়ামে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা ওসমান লিপি, মহিলা সংস্থার পরিচালক সচিব প্রফেসর ডাঃ শিরিন বেগম, মহিলাদের সংস্থার পরিচালক সদস্য ইসরাত জাহান স্মৃতি, কামরুন্নাহার মিতালি ও মাহমুদুল রহমান ডালিয়া, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনি, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারী, সোনারগাঁও উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ডালিয়া লিয়াকত, নারায়ণগঞ্জ জেলা কর্মকর্তা আব্দুল বারী, সদর উপজেলার ভাইস মহিলা চেয়ারম্যান ফাতেমা মনি, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সার্বেক কাউন্সিলর শারমিন হাবিবা প্রীতি, নারায়ণগঞ্জ জেলার মহিলা আইনজীবী আওয়ামী পরিষদের সভানেত্রী অ্যাড. সেলিনা বেগম, নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির অ্যাড. নূর জাহান, অ্যাড. সুইটি, অ্যাড. বিভা রানী কর্মকার সহ আরো অনেকে।
সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারী বলেন, আমরা সেই দেশের বাঙালী। যে দেশের নেতা আমাদের মুক্তি এনে দিয়েছে। স্বাধীনতা এনে দিয়েছে। আমি তাদের কুলাঙ্গার বাঙালী বলবো। যারা ধারণা করে ছিলেন বঙ্গবন্ধুর কন্যা কখনো এদেশে ফিরে আসবে না। তিনি দেশে ফিরে এসে শুধু পিত্রী হত্যার বিচার করেন নি দিনের পর দিন দেশে উন্নয়ন করে যাচ্ছে। তার উন্নয়নে অনেকে অনেক সময় বাঁধা সৃষ্টি করে কিন্তু তিনি সব বাধাঁ পেরিয়ে তার লক্ষে তিনি ঠিকই পৌছাবেন আপনাদের সকলের দোয়া।
সোনারগাঁও উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ডালিয়া লিয়াকত বলেন, আজ আমরা কথা বলতে পারছি, দাড়িয়ে আছি, বাঙালী হিসেবে যে গর্ববোধ করতে পারছি শুধু মাত্র বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুরের মতো একটা সুযোগ্য নেতার কারণে। সব তারই অবদান। সকলের সহযোগীতায় বঙ্গবন্ধুর দেখা সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যকে পূরণ করতে সকল রকমের সহায়তা করবো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে।

মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা ওসমান লিপি বলেন, অন্তরের অন্তর স্থর থেকে তাদের জন্য দোয়া করি এবং তাদের স্মরণ করি। তাদের প্রতি হওয়া অন্যায়ের বিচারের জন্য জনগণের কাছে বিচার চেয়েছি। গণতন্ত্রের কাছে বিচার চেয়েছি। কিন্তু তারপরও বিচার পাইনি। যে মারে সেই বুক ফুলিয়ে চলে। বঙ্গবন্ধুকে একবার না বার বার মারতে চেয়েছে কিন্তু আল্লাহ রহমতে মারতে পারেনি। কারণ আল্লাহ সৎ লোকের সব সময় সহায়তা করে।
তিনি আরো বলেন, শিখলাম কিন্তু শিখালাম না। বুজলাম কিন্তু বুজালাম না। যদি এমন ভাবে চলতে থাকে তাহলে আবার পিছিয়ে পড়বে বাংলাদেশ ও নতুন প্রজম্ম। তাই সব সময় সকল প্রজম্মকে শুনাতে হবে অতীতের কালো ইতিহাস। ১৯৬৯ এর ইতিহাসের কাহিনী।
এছাড়াও তিনি সকলের সামনে আরেক বার তুলে ধরলেন ১৫ আগস্ট এর করুণ হত্যা মামলার গল্প কাহিনী।

0