পিতার কুলখানিতে অশ্রু ধরে রাখতে পারলেন না তানভির আহমেদ

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নিজের পিতার কুলখানিতে সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনাকালে আশ্রু ধরে রাখতে পারলেন না তানভির আহমেদ টিটু। অশ্রুশীক্ত নয়নে সকলের নিকট তার পিতা সাইফউদ্দিন আহাম্মেদের জন্য দোয়া চান।


মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) আছর নামাজের পর নগরীর জামতলায় নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানের শ্বশুর, জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা ওসমান লিপি ও বিসিবি’র পরিচালক তানভির আহমেদ টিটুর পিতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সাইফউদ্দিন আহাম্মেদের কুলখানি অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা চাওয়ার সময় অশ্রুশীক্ত আবেগময় কন্ঠে তানভির আহমেদ টিটু বলেন, ১৯৯৫ সালে আমার বাবা হেপাটাইটিস বি তে আক্রান্ত হন। ওনার লিভার নষ্ট হয়ে যায়। তখন আমরা শামীম ভাইয়ের মাধ্যমে, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় আমরা বাবার চিকিৎসা সুন্দর ভাবে করাতে পারি। তখন ডাক্তার বলেছিলেন, দেখেন ওনার যা অবস্থা আমাদের হাতে এখন কিছু নাই; রাত পর্যন্ত আছেন হয়তোবা। আমরা সকলে তখন দোয়া করলাম। একদিন আমার বাবা হসপিটালের বেডে শুয়ে ছিলেন, তখন হটাৎ বাবা বলে উঠলেন ‘এটা কে, এটা কে’ আমি বললাম মা এসেছে। তখন আমরা ঢাকায় একটি বাসা ভাড়া নিয়ে থাকা শুরু করলাম। দুই-আড়াই মাস পর বাবা লাঠিতে ভর করে একটু একটু হাটা শুরু করেছে। একদিন বাবা আমাকে বললেন, মনে আছে হসপিটালে আমি একদিন বলেছিলাম ‘এটা কে এটা কে’। আমি বললাম হ্যা বাবা, ওই দিন তো মা এসেছিলো। বাবা বললেন, যানতে চাস আমি কি দেখে ছিলাম। আমি বললাম, হ্যা। তখন বাবা বললেন, আমি দেখলাম তোর মা এসেছিলো কিন্তু যখন দরজাটা বন্ধ হচ্ছিলো তখন খুব নুরানি একটি চেহারা আমি দেখেছিলাম।

কান্না জরিত কন্ঠে তানভির আহমেদ বলেন, আমি এই কথা গুলো এ জন্য বললাম কারন আমরা মসজিদ থেকে খুতবা শুনে বাইরে গিয়ে তা ভুলে যাই। আমি আপনাদের এতো টুকু ফিল করাতে চাই যে, আমরা আল্লাহর কাছে দোয়া করেছি এবং তিনি তার পরিপ্রেক্ষিতে ২৭টি বছর আল্লাহ তাকে হায়াত দান করেছেন। কিন্তু কিছুদিন পুর্বে বাবা যখন আইসিইউতে ছিলেন তখন আমি তার বেডের পাশে দাড়িয়ে আল্রাহর কাছে দু হাত তুলে বলেছি, আল্লাহ আমি তোমার উপরে ছেড়ে দিলাম, তুমি যদি মনে করো আমার বাবার আমাদের মাঝে থাকা উচিত তাহলে তুমি তাকে হায়াত দান করো, আর যদি তোমার কাছে নিয়ে যেতে চাও তাহলে আমার বাবাকে আর কষ্ট দিওনা, নিয়ে যাও। আমার বাবার কষ্ট দেখে আমার যে কি ফিল হচ্ছিলো, তা বলে বুঝানোর মতো না।

তানভির আহমেদ আরও বলেন, এখানে যাদের বাবা-মা দুনিয়াতে নেই তাদের জন্য আমরা সকলেই দোয়া করবো। আর যাদের বাবা-মা আছে তাদের আমি বলতে চাই, আপনারা আপনাদের বাবা-মা’র দিকে খেয়াল রাখবেন। যাদের কারনে আমরা এ দুনিয়ায় এসেছি, তাদের সকল ইচ্ছে পুরণ করার চেষ্টা করুন। আল্লাহ সকলের পিতা মাতাকে দীর্ঘায়ু দান করুক। আপনারা সকলে আমার বাবার জন্য দোয়া করবেন।

এ সময় পরিবারের পক্ষ থেকে আরও দোয়া প্রার্থনা করেন- মরহুমের জামাতা নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান, মরহুমের বড়ছেলে আমেরিকা প্রবাসী ডাঃ শামীম আহমেদ, মেয়ে জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা ওসমান লিপি, মরহুমের নাতী নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাষ্ট্রির পরিচালক ইমতিনান ওসমান অয়ন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাষ্ট্রির সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, বিকেএমইএর সহ সভাপতি মোরশেদ সারোয়ার সোহেল, ফয়েজউদ্দিন আহমেদ লাভলু, বিকেএমইএর সাবেক পরিচালক মোঃ জাকির হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আবু জাফর চৌধুরী বিরু, কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফউল্লাহ বাদল, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদেও সদস্য জাহাঙ্গির, নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হাসান নিপু, নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো. জুয়েল হোসেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াদ প্রধানসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকর্মীসহ স্থানীয় এলাকাবাসী।

0