প্রবাসী স্বামীর সাথে কথা বলতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার, আটক ১

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: কুয়েতে বসবাসরত স্বামীর সাথে কথা বলতে ঘর থেকে বের হন স্ত্রী। কিন্তু ঘরের বাইরে ওৎপেতে থাকা দুই নরপশু তাকে ধরে নিয়ে যায় ক্ষেতে। পালাক্রমে করে গণধর্ষণ।

সোনারগাঁ উপজেলার সনমান্দি ইউনিয়নের ইমানেরকান্দি গ্রামে এমনভাবেই গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক প্রবাসীর স্ত্রী। শুক্রবার (২১ জুন) রাতে গণধর্ষণের শিকার হন তিনি। এঘটনায় ধর্ষক একই গ্রামের সামসুল হক মিয়ার ছেলে ছালাউদ্দিন (২৪) ও সিরাজুল ইসলামের ছেলে আনোয়ার হোসেন (৩২)।

ঘটনার পরদিন (২২ জুন) রাতে ধর্ষিতা বাদি হয়ে সোনারগাঁও থানায় একটি ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর পুলিশ রাতেই ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে আনোয়ার হোসেন নামে এক ধর্ষককে আটক করে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সনমান্দি ইউনিয়নের ঈমানেরকান্দি গ্রামে ২ সন্তানের জননী গৃহবধূ তার সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়িতে বসবাস করতেন। গত শুক্রবার (২১ জুন) রাত সাড়ে ১২ টার দিকে গৃহবধূ তার বিদেশ প্রবাসী স্বামীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলতে ঘরের বাহিরে যান। এ সময় আগে থেকে ওৎপেতে থাকা একই গ্রামের সামসুল হক মিয়ার ছেলে ছালাউদ্দিন (২৪) ও সিরাজুল ইসলামের ছেলে আনোয়ার হোসেন (৩২) গৃহবধূর মুখে গামছা পেচিয়ে জোরপূর্বক পাশের একটি ক্ষেতে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। অনেক সময় পেরিয়ে যাওয়ার পর গৃহবধূ ঘরে না ফেরায় বাড়ি থেকে বের হন তার মা। বাহিরে বেরিয়ে খুঁজতে থাকেন মেয়েকে। এসময় গৃহবধূকে না পেয়ে তার মা তাকে ডাকতে ডাকতে ক্ষেতের কাছে গেলে মেয়ের গোংরানোর আওয়াজ পায়। সেখানে এগিয়ে গেলে ধর্ষণকারীরা পালিয়ে যায়। পরে আহত গৃহবধূকে উদ্ধার করে কাঁচপুর শুভেচ্ছা ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়।

এদিকে, এ ঘটনার কথা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে ধর্ষকদের বাড়ীঘর ভাঙচুর করে।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁও থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ আনোয়ার নামে একজনকে আটক করেছে। অন্য আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

0