‘প্রশংসা করতে হলে খোরশেদ-শকু-রিপন-মুন্নাকে করুন’

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: এখন সত্যিই যদি কারো প্রশংসা করতে হয় তাহলে আপনারা কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, শওকত হাশেম শকুর, জাতীয় পার্টির নেতা রিপন ভাওয়াল, সাবেক কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্না এদের প্রশংসা করুন। এই করুনা কালে তারা যা করেছেন সেটা যদি সবাই অনুসরন করেন তাহলে দেখবেন আমরা অনেক সহজেই এই করোনা মহামারি মোকাবেলা করতে পারবো।

১৪ জুলাই জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের ১ম মৃত্যুবার্ষিকীতে এ কথা বলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান।

অনুষ্ঠানে তিন হাজার অসহায় পরিবারের শিশুদের জন্য গুড়ো দুধ বিতরন করেন সেলিম ওসমান।

এসময় নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এই সংসদ সদস্য আরও বলেন, আওয়ামীলীগ-জাতীয় পার্টি-বিএনপি কারো জন্য এখন রাজনীতি করার সময় না। এখন মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সময়। আর সকলের কাছে আমি অনুরোধ করে বলবো স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগীতা ছাড়া, কোন এমপি এলাকায় উন্নয়ন করতে পারে না। তাই আপনারা আমার প্রশংসা করে সময় নষ্ট করবেন না।

সেলিম ওসমান আরও বলেন, বন্দরে অসহায় পরিবার গুলোর মধ্যে প্রায় ১০ হাজার শিশু রয়েছে যারা এই করোনার সময়ে দুধ খেতে পারছেন না। আজকে আমি ৩ হাজার শিশুর জন্য ৩ হাজার প্যাকেট গুড়ো দুধ নিয়ে এসেছি। যা আপনারা জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা সঠিক পরিবারের কাছে পৌছে দিবেন। বিগত দিনে আমি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে বিভিন্ন সাহায্য অসহায় মানুষদের ঘরে পৌছে দিয়েছি। আপনারা জনপ্রতিনিধিদের সহযোগীতা নিয়ে সে গুলো ঘরে ঘরে পৌছে দিবেন। এতোদিন আমি শুধুই স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে করোনা মোকাবেলায় কাজ করেছি। আজ থেকে আমার নিজ দল জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা করোনা মোকাবেলায় মাঠে নামবে। মানুষের জন্য কাজ করতে মানুষকে শুধু টাকা পয়সা দিয়েই উপকার করা যায়না। উপকার করার ইচ্ছা থাকলে নিজের পরিশ্রম দিয়েও করা যায়।

জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আবুল জাহের এর সভাপতিত্বে ও শহর যুবসংহতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রিপন ভাওয়াল এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- মহানগর জাতীয় পার্টির আহবায়ক সানা উল্লাহ সানু, মহানগর জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব আকরাম আলী শাহীন, কলাগাছিয়া ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি বাচ্চু মিয়া, ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান, বন্দর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন, ধামগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ, মদনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম.এ সালাম, বন্দর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি শাহাবুদ্দিন সাবা, সাধারণ সম্পাদক এরশাদ হোসেন, যুবলীগ নেতা খান মাসুদ, মহানগর ছাত্রলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আরাফাত কবির ফাহিম, ১৯নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সভাপতি পলি বেগম সহ বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির নেতৃবৃন্দরা।

0