প্রিয়জ‌নের টা‌নে না.গঞ্জ ছাড়ছেন, শহরে যানজট

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণরোধে প্রশাসন থেকে শুধু জেলা নয় এক উপজেলা থেকে অন্য উপজেলায়ও ভ্রমণের নিষেধাজ্ঞা ছিল। কিন্তু, ঈদের দু’দিন আগেই প্রশাসন থেকে জানানো হয় পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটির কারণে যারা নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রামের বাড়ি ফিরতে চান তাদের ক্ষেত্রে আর কোন বাধাঁর সম্মুখীন হতে হবে না।

নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম ২৩মে (শনিবার) বলেন, সরকারের উচ্চমহল থেকে মৌখিক এই নির্দেশনাটি প্রথমে পুলিশে আসে। নির্দেশনায় বলা হয়, যারা কষ্ট করে বাড়ি ফিরছেন তাদের যেন বাড়ি ফিরতে দেয়া হয়। তবে তারা গণপরিবহনে বাড়ি ফিরতে পারবেন না, লেগুনাও বন্ধ থাকবে এসময়। নিজস্ব পরিবহন এবং সিএনজি’র মতো ছোট যানে করে বাড়িতে যেতে পারবে।

এরপরই চিত্র পাল্টে গেল নারায়ণগঞ্জ শহরের। গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রামের বাড়ি কিংবা আত্মীয়ের বাড়িতে ছুটছেন এ অঞ্চলের বাসিন্দারা।

২৪মে (রোববার) সকালে নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাড়া এলাকায় এরকমই চিত্র পরিলক্ষিত হয়।

চাষাড়ার খাজা সুপার মার্কেটের সামনেই দেখা যায়, ভাসমান সিএনজি স্ট্যান্ড। যা পূর্বে ছিল না, বর্তমানে ঈদকে সামনে রেখে এ স্ট্যান্ড বসানো হয়েছে। সেখান থেকে মাওয়া এবং মুন্সিগঞ্জে অনেকেই সিএনজিতে করে ইতিমধ্যে অনেকেই নারায়ণগঞ্জ ছেড়ে গেছেন।

এদিকে অতিরিক্ত যানবাহনে নারায়ণগঞ্জ শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক যানজটের।

এছাড়াও, নারায়ণগঞ্জ থেকে বের না হতে দেওয়ার জন্য যে সকল গুরুত্বপূর্ণ চেকপোস্ট রয়েছে সেখান থেকে চেকপোস্ট তুলে নিয়ে, নিয়মিত ডিউটিতে পুলিশ তল্লাশি করছে বলে জানিয়েছিলেন পুলিশ সুপার।

এলএন/এইচএস/০৫২৪-০৯

0