প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুল ছাত্রীকে তুলে নেয়ার চেষ্টা

0

ফতুল্লা করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আলীরটেকে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুল চলাকালিন সময় স্কুল হতে ৯ম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে টেনে হেচরা করে তুলে নেয়ার চেষ্টা চালিয়েছে স্থানীয় কয়েকজন বখাটে। এসময় স্কুলের অন্য শিক্ষার্থীদের চিৎকারে পালিয়ে যায় বখাটেরা। এ ঘটনা নিয়ে এলাকায় যেমন চাঞ্চ্যলকর সৃষ্টি হয়েছে তেমনি স্কুলের ছাত্রীসহ অভিভাবকদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আলীরটেক ইউনিয়নের কুড়েরপাড় আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

স্কুলের সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে উক্ত স্কুলের ৯ম শ্রেনীর মানববিক শাখার ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছে আলীরটেকের দক্ষিন ক্রুকেরচর এলাকার সালাউদ্দিনের বখাটে ছেলে আল হাসান (১৮)। সে তার বন্ধু বান্ধবদের নিয়ে ঐ ছাত্রী স্কুলে আসা যাওয়ার পথে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এতে করে স্কুল ছাত্রী কোন কর্ণপাত না করলে নানা ধরনের হুমকি প্রদান করে। বুধবার স্কুল প্রতিদিনের ন্যায় টিফিন দেয়ার সময় অনেক শিক্ষার্থী বাড়িতে গেলেও কিছু শিক্ষার্থী স্কুলে অবস্থান করে টিফিনের সময় পাড় করেন। দুপুর ১.৪৫ মিনিটের সময় আল হাসান তার আরো দুই বন্ধুকে নিয়ে স্কুলে প্রবেশ করে স্কুলের কক্ষে থাকা উক্ত ৯ম শ্রেনীর ছাত্রীকে ফের প্রেমের প্রস্তাব দেয়। সে রাজি না হওয়ার দরুন তাকে শরীরে স্পর্শ করে টানাহেচরা করে স্কুলের ২য় তলা ভবন হতে নিচে নামিয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। ঐসময় স্কুলের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা দেখে ডাক-চিৎকার করলে পালিয়ে যায় বখাটেরা।

স্কুলের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী কান্নাকাটি করে বলেন, স্কুলের নিরাপত্তার অভাবে বহিরাগত বখাটেরা স্কুলে এসে তার শরীরে স্পর্শ করে টানাহেচরা করে তুলে নিয়ে যাওয়ার সাহস পেয়েছে। আর স্কুলের এক ছাত্রের সহযোগিতায় বখাটে আল হাসান এ ধরনের কাজ করার দু;সাহস করতে পেরেছে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেন জানান, ঘটনার সময় আমি স্কুলে ছিলাম না। তবে ঘটনার সংবাদ পেয়ে দ্রুত স্কুলে এসে খবর নিয়ে জানতে পারলাম ঘটনা। এসে যতটুকু জানতে পারলাম স্থানীয় বখাটে আল হাসান তার বন্ধুদের নিয়ে স্কুলের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রীকে স্কুল হতে তুলে নেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। স্কুলের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা বখাটেদের ধাওয়া করলে তারা পালিয়ে যায়। বখাটদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হবে।

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাহিদা বারিক জানান, আমি লোক মাধ্যমে খবর পেয়েছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ আমাকে বিষয়টি নিয়ে অবগত করেনি। আমি ঘটনার খোজখবর নিয়ে এবং স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

0