ফটোগ্রাফির সাথে আমার আত্মিক সম্পর্ক: মোহাম্মদ হাতেম

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: অনেকের পিছনে পিছনে থেকে থেকে আমি ঢাকার মাঠে ছবি তুলেছি। তখন সাদা কালো ছবি ছিল। ১৯৭৯ সালে আমার ছবি দেখে কোলকাতার ইডেন্টগার্ডেনে আসিফ ইকবালের বিদায় টেটে নিয়ে যাওয়া হয়। সেটাই ছিল আমার প্রথম রঙ্গিন ছবি। এরপর আশির দর্শকে পুরোপুরি ফটোগ্রাফিতে। কিভাবে যে জড়িয়ে পড়েছি, নিজেও বুঝতে পারিনি।

বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ) সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহাম্মত হাতেম শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় নিজের প্রথম জীবনে আলোকচিত্রকার হওয়ার কথা তুলে ধরেন।

বর্তমানে বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে বিশেষ ভূমিকা রাখছেন এই ব্যবসায়ী। দিচ্ছেন নীট পোশাক শিল্প রপ্তানী খাতে ব্যবসায়ীদের নেতৃত্বও। এই সফল ব্যবসায়ী যে কখনো ফটোগ্রাফি করতেন এটা অনেকেরই অজানা। সেই অজানা তথ্য অ্যান্টিক প্রথম আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা ও প্রদর্শনীতে গিয়ে মোহাম্মদ হাতেম নিজেই তুলে ধরেছেন।

মোহাম্মদ হাতেম বলেন, ‘১৯৮০ সালে শুরুতে আমিও ফটোগ্রাফিতে ছিলাম। তখন ১৯৮৬ সালে আমার কয়েকটা ছবি প্রথম বিউ কার্ড, ক্যালেন্ডার ও পোস্টার করে আজাদ প্রোডাক্টস। তখন খুব অনুপ্রাণিত হয়ে ছিলাম। আবাহনী ও মোহামেডানের বহু ছবি তুলেছি। তখন শাহাবাগের টিবলি স্টোডিওতে দিতাম। সেখান থেকে ১ মাস পরে আসতো। এরপর ২ বছর ফটোগ্রাফির কোর্চ করেছি।’

অনুষ্ঠানে মোহাম্মদ হাতেম বলেন, ‘ফটোগ্রাফির সাথে আমার আত্মিক সম্পর্ক আছে। এখনও একটু সময় পেলেই আমি পারিবারিক ফটোগ্রাফি করি।’

এ সময় মোহাম্মদ হাতেম অপসাংবাদিকতা নিয়ে বলেন, নারায়ণগঞ্জের অনেক সাংবাদিক রয়েছে, সংবাদ প্রকাশ করে, আমার সেই সংবাদপত্র পয়সা খরচ করে অফিস পর্যন্ত পৌছে দেয়। যাতে দেখতে পারে। আমার সাথেও প্রায়ই এমন ঘটনা ঘটেছে। আমি আশা করবো এই সমস্ত অপসাংবাদিকতার বিরুদ্ধে সবাইকে রুখে দাঁড়াতে হবে।

প্রসঙ্গত, অ্যান্টিক প্রথম আলোকচিত্র প্রতিযোগীতা ও প্রদর্শনী ২০২০ উপলক্ষ্যে আলী আহম্মেদ চুনকা নগর পাঠাগার ও মিলনায়তনে অনুষ্ঠানটি হয়। অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা উপস্থিত ছিলেন।

0