ফাতেমা মনিরকে সাড়ে ৩ ঘন্টা বসিয়ে রাখলো পুলিশ, ভুল স্বীকারের পর মুক্তি

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: থানার হাজত থেকে জোড় করে আসামী ছিনিয়ে আনার চেষ্টার ঘটনায় আটক সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনিরকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ নেতাদের তদবিরে আটকের সাড়ে তিন ঘণ্টা পর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৪টার দিকে থানা থেকে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এর আগে ১৩ ফেব্রুয়ারি দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে জনৈক আসামীকে দেখেতে ফতুল্লা মডেল থানায় আসেন ফাতেমা মনির। এসময় তিনি আটক আসামীকে ছাড়িয়ে নিতে চান। এ নিয়ে পুলিশের সাথে তর্ক বিতর্ক হয়। এক পর্যায়ে ফাতেমা মনির হাজতের দায়িত্বে থাকা সেন্ট্রির কাছ থেকে জোরপূর্বক চাবি ছিনিয়ে নেন এবং থানার লকাব খোলার চেষ্টা করলে পুলিশের সাথে ঊশৃঙ্গল আচরণ করেন। এসময় তার দ্বারা পুলিশের কনস্টেবল লাঞ্ছিত হন। পরে এই ঘটনায় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে ফাতেমা মনিরকে আটক করে পুলিশ।

খবর শুনে উপস্থিত হন ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগে সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী এবং মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম। এ সময় তাদের উপস্থিতিতে মুচলেকা রেখে ফাতেমা মনিরকে ছেড়েছে পুলিশ।

ফতুল্লা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসলাম হোসেন জানান, একটি মামলায় আসামী ধরে আনা হয়েছিল। সেই আসামীকে ছাড়াতে এসে পুলিশের সাথে ঊশৃঙ্খল আচরণ করে উপজেলার নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির। পরে তাকে বসিয়ে রাখা হয়। এ খবর শুনে আসে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী ও মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ্ নিজাম। পরে ফাতেমা মনির ভুল স্বীকার করলে মুছলেকা নিয়ে বিকাল ৪টার দিকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, ঘটনার বিস্তারিত জানতে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বেগম ফাতেমা মনিরের মোবাইল নম্বরে একাধিক বার ফোন করলেও বন্ধ পাওয়া যায়।

0