ফেসবুকে শুরু, উদ্যোগ নিয়ে সফল না.গ‌ঞ্জের নারীরা

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: কেউ পোশাক, কেউ গয়না, কেউ হাতে তৈরি জিনিস, কেউ তৈরি খাবারসহ নানা পণ্য বিক্রি করছেন। অনেকে দেশীয় সংস্কৃতিকে তুলে ধরার কাজ করছেন। কেউ শৌখিন পণ্য নিয়ে ব্যবসায় নেমেছেন।

নগরীর গ্রান্ড হল রেস্টুরেন্ট এন্ড কনভেনশ সেন্টারে আয়োজিত ৩ দিন ব্যাপী শীত মেলা ও পিঠা উৎসবের শেষ দিনে এ চিত্র চোখে পরে।

মেলার শেষ দিনেও ক্রেতাদেরও কমতি ছিল না। তবে, বেশির ভাগই নারী ক্রেতা।

এই নারীরা সবাই শিক্ষিত। পরিবারের চাপসহ নানা সমস্যায় অনেকের পক্ষে চাকরি করা সম্ভব হয়নি। অনেকে নিজে কিছু করবেন বলে বদ্ধপরিকর। ফলে পরিবার সামলানোর পাশাপাশি স্বাধীন এ ব্যবসার যাত্রা।

শুরুটা ফেসবুক থেকে। কয়েক জন নারী মিলে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তৈরি করেন নারায়ণগঞ্জের নারীদের জন্য ‘গার্লস গ্রুপ’। প্রথম দিকে তেমন সারা না পেলেও এখন বেশ জমে উঠেছে। অনলাইনে অডার করেন ক্রেতারা, সেই অনুযায়ী পৌছে যায় পণ্য। সারা বছর অনলাইনে ব্যবসা করলেও ক্রেতাদের কাছে আস্থার জায়গা ধরে রাখতে করা হয় প্রতিবছর এই মেলাটি। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

৭ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া এই মেলার ৫৮টি স্টলে মিলেছে শাড়ী, ওড়না, থ্রী-পিস, বিভিন্ন ডিজাইনের জুতা, হরেক রকমের হাতের চুড়িঁ ও কসমেটিক্স। এছাড়াও হাতের বানানো খাবারের মধ্যে কেক, নুডুলস, পাস্তা, চপ, পুডিং, চিকেন ও ভেজিটেবল রোল। জ্বিবে জল আসার মতো বিভিন্ন আইটেমের ঝাল, টক, মিষ্টি আচাঁর। আর চা-খোরদের জন্য ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের চা তো ছিলই। এখানে সব থেকে আকর্ষনীয় চায়ের মধ্যে ছিলো সাজেকের বিখ্যাত বাঁশ চা।

মেলার উদ্যোক্তা ওয়াহিদা খান বৃষ্টি বলেন, ‘অনলাইনে কোন কিছু কিনতে গেলে মানুষ মনে করে এটা ফেইক বা প্রোডাক্ট এর কোয়ালিটি ভালো না। অনেক সময় হয়তো অনেকেই অর্ডার করেন আম কিন্তু আসে জাম। তাই অনলাইনের ক্রেতাদের আস্থা আর বিশ্বাসের জায়গা ধরে রাখতে আমরা প্রতিবছরই শীতের মৌসুমে ‘শীত মেলা ও পিঠা উৎসবের’ আয়োজন করি। আমাদেরে উদ্দেশ্য থাকে অনলাইন সেলার গুলোকে অফলাইনে মানুষের সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়া।’

 

0