বন্দরে ইউপি সদস্যকে অস্ত্র ঠেকিয়ে হত্যার চেষ্টা, গ্রামবাসীর বিক্ষোভ

0

বন্দর করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বন্দরে সাদেকুর রহমান (৪৮) নামের এক ইউপি সদস্যকে মাথায় পিস্তাল ঠেকিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে তালিকাভূক্ত মাদক কারবারি ও সন্ত্রাসী রুবেল।

রোববার রাতে লাউসার গ্রামের সুরুজ্জামানের দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশের পুরুস্কার ঘোষিত মাদক করবারি,সন্ত্রাসী রুবেল গ্রেপ্তারের দাবিতে সোমবার বিকালে বিক্ষোভ মিছিল করেন কয়েকশত গ্রামবাসী। এলাকায় রুবেলের মাদক ব্যবসা বন্ধের প্রতিবাদ করায় মদনপুর ইউপির ৬ নং ওয়ার্ডেও সদস্যকে তুলে নিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে বলে গ্রামবাসী জানিয়েছেন।

পুলিশ ও গ্রামবাসী জানান, উপজেলার মদনপুর ইউপির লাউসার (নেহাল সরদারেরবাগ) গ্রামের মৃত জাকির হোসেনের ছেলে রুবেল মাদক বিক্রি এখনো বন্ধ করেনি। দোকানে বসে এ ধরনের সমালোচনা করে একই গ্রামের আবু বকর সিদ্দিকের ছেলে মো. মাসুদ। এ খবর পেয়ে সন্ত্রাসী রুবেল তার সহযোগীদের সঙ্গে নিয়ে রবিবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে সুরুজ্জামানের দোকানে বসা অবস্থায় মাসুদকে মারধর শুরু করে।

এসময় একই গ্রামের ইউপি সদস্য মো. সাদেকুর রহমান রুবেলকে শাসান। পরে মাসুদকে ছেড়ে দিয়ে মেম্বার সাদেকের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে তাকে তুলে নিয়ে হত্যার চেষ্টার করে। মেম্বারকে অস্ত্র ঠেকিয়ে তুলে নিয়ে যাচ্ছে। এ খবর পেয়ে অর্ধশত গ্রামবাসী এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসী রুবেল ও তার সহযোগীদের নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ইউপি সদস্য সাদেকুর রহমান বাদি হয়ে রুবেলসহ তার দুই সহযোগী মোস্তাফা ওরফে মোস্তাক ও মোস্তাফা ওরফে সুরমা মোস্তফাকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। রুবেলের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জ, বন্দর ও রাজধানীসহ কয়েকটি থানায় অস্ত্র, ডাকাতি, চাঁদাবাজি ও মাদকসহ প্রায় দেড় ডজন মামলা রয়েছে।

এ ঘটনায় গতকাল সোমবার বিকালে লাউসারসহ কয়েকটি গ্রামের কয়েক শত নারী পূরুষ সন্ত্রাসী রুবেলকে গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রুবেল পুলিশের পুরুস্কার ঘোষিত বন্দর থানার ১৫ নং তালিকাভূক্ত মাদক কারবারি। রুবেল ইতি পূর্বে কয়েক বার গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সাদেক মেম্বারের অভিযোগ গ্রহন করে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। রুবেলকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।

0