বন্দরে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক, ৩মাস পর মামলা

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বন্দর উপজেলায় বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক করেছে সমবয়সী দুই যুবক-যুবতী। কিন্তু, তাদের শারীরিক সম্পর্কের ৩মাস ২২দিন পার হওয়ার পর যুবক বিয়েতে অস্বীকৃতি প্রদান করলে, ওই যুবতী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করে।

এরকমই একটি ঘটনা ঘটেছে বন্দর উপজেলার তিনগাও এলাকায়।

ডিগ্রি ২য় বর্ষের ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষনের ঘটনায় একই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী সাইদুল হাসান (২৪) কে আটক করেছে বন্দর থানা পুলিশ।

সোমবার দুপুরে বন্দর উপজেলার তিনগাও এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

এ ব্যাপারে ভূক্তভোগী কলেজ ছাত্রী ৩ মাস ২২ দিন অতিবাহিত হওয়ার পর অবশেষে সোমবার সকালে বাদী হয়ে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছে। যার মামলা নং-(৭)২০।

আটক কলেজ ছাত্র সাইদুল ইসলাম বন্দর তানার তিনগাও এলাকার মৃত আনোয়ার হোসেন মিয়ার ছেলে।

মামরা সূত্রে জানা গেছে, ভূক্তভোগী কলেজ ছাত্রী ও বন্দর থানার তিনগাও এলাকার মৃত আনোয়ার হোসেন মিয়ার ছেলে লম্পট সাইদুল ইসলামের সাথে একই কলেজে লেখাপড়া করে আসছে। এ সুবাদে গত ২ বছর ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কলেজ ছাত্র সাইদুল র্দীঘ দিন ধরে একই কলেজের ছাত্রীকে শারিরীক সম্পর্ক করার প্রস্তাব দিয়ে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় গত ১৪ র্মাচ রাতে লম্পট সাইদুল ইসলাম বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কলেজ ছাত্রীকে তার নিজবাড়িতে নিয়ে আসে। পরে প্রতারক সাইদুল ইসলাম বিয়ে না করে কলেজ ছাত্রীকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ভাবে ধর্ষন করে।

এ  ব্যাপারে বন্দর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ঘটনা আরও ৩মাস পূর্বে ঘটেছে। বিয়েতে অস্বীকৃতি জানালে যুবতী আজকে মামলা দায়ের করে।

সোমবার দুপুরে ধর্ষিতাকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। এবং একই সময়ে পুলিশ আটককৃত লম্পটকে উক্ত মামলায় আদালতে প্রেরণ করেছে।

0