বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে সিপিবি’র সমাবেশ

0

লাইভ নারায়নগঞ্জ: বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির উদ্যোগে বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে এক গণ-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২৮ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) বিকেল ৪টায় ২নং রেলগেইট সৈয়দ আলী চেম্বারে এ গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম।

বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এড. মন্টু ঘোষ, নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তী, জেলা সম্পাদক মন্ডলির সদস্য জাকির হোসেন, বিমল কান্তি দাস, আঃ হাই শরীফ, শাহানারা বেগম, জেলা কমিটির সদস্য দুলাল সাহা, ইকবাল হোসেন, এম. এ. শাহীন প্রমুখ।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে সরকার বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির যে ঘোষনা দিয়েছে তা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের মূল্য কমছে। পৃথিবীর অনেক দেশে জ্বালানী ও বিদ্যুতের মূল্য কমানো হয়েছে। বাংলাদেশেও জ্বালানী তেলের মূল্য কমানো উচিত ছিলো। জ্বালানী তেলের মূল্য কমানোর সুযোগ থাকার পরও সরকার তা করে নাই। বরং, উল্টোভাবে বিদ্যুতের মূল্য বাড়িয়ে জাতীয় অর্থনীতিতে এক নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি তৈরী করছে। বিদ্যুতের মূল্য বাড়লে চাল ডাল তেলসহ সকল নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বাড়বে। এমনকি গাড়ী ভাড়া বাড়ী ভাড়াও বাড়বে। এটা জনগনের সাথে এক ধরনের বিশ্বাসঘাতকতা। এই মূল্য বৃদ্ধির কোন প্রয়োজনই ছিল না। বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী মালিকানাধীন কোম্পানীগুলো যাদের কাছ থেকে সরকার বিদ্যুৎ ক্রয় করে থাকেন সেই কোম্পানীগুলো অত্যন্ত লাভজনক অবস্থায় আছে। প্রয়োজন হলে সরকার জ্বালানী তেলের মূল্য কমাতে পারতো। রেন্টাল, কুইক রেন্টাল কোম্পানীগুলো সরকারের মন্ত্রীদের আত্মীয়স্বজনের হওয়ার কারনে তাদেরকে লুটপাটের সুযোগ করে দেবার জন্যে এই মূল্য বৃদ্ধি। এটা মূলত এক ধরনের রাষ্ট্রীয় লুটপাট। কিন্তু ষোল কোটি নিরীহ জনগন এই লুটপাটের শিকার হবে। সরকার জনগনকে কথা দিয়েছিল বিদ্যুতের মূল্য আর বাড়ানো হবে না। সরকার সে কথা রাখেনি। মূল্য বৃদ্ধি ও লুটপাটের বিরুদ্ধে নেতৃবৃন্দ সকল জনগনকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়াইয়ে নামার আহ্বান জানান ।

0