বয়স যাদের ৫০’র অধিক, করোনা ধরলে ছাড়বে না: সেলিম ওসমান

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক জাহের ভাই যদি অজান্তে কারো মনে কষ্ট দিয়ে থাকেন তাহলে আমি উনার এবং উনার পরিবারের পক্ষ থেকে আপনাদের সকলের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি। আপনারা উনাকে ক্ষমা করে দিয়ে দোয়া করবেন। আল্লাহ যেন উনাকে দ্রুত সুস্থ করে দেন। তিনি যেন আবারো আমাদের মাঝে এসে জনগনের সেবার কাজে নিয়োজিত হতে পারেন।

বৃহস্পতিবার ৬ আগস্ট বাদ আসর আবু জাহেরের সুস্থতা কামনায় এক দোয়া অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান।

বন্দর খেয়াঘাট সংলগ্ন সুরুজ্জামান টাওয়ারে আয়োজিত উক্ত অনুষ্ঠানে সেলিম ওসমান আরও বলেন, আমাদের বয়স যাদের ৫০ এর উপরে তাদেরকে করোনা ধরলে আর ছাড়বেনা। আমি আপনাদের ভালবাসা আর দোয়ায় বেঁচে আছি। মানুষের দোয়ায় আল্লাহর রহমত রয়েছে। জাহের ভাই, রশিদ ভাই, মুকুল এবং বন্দরের ৫টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমার সকল কাজে সর্বাত্মক সহযোগীতা করেছেন। তাদের এই অবদানের কারনেই আমি আপনাদের বন্দরবাসীর ভালবাসা পেয়েছি। আজকে উনার সুস্থতা কামনা করে দোয়ায় আমি ঘরে বসে থাকতে পারনি। আমার মত রশিদ ভাইও ঘরে বসে থাকতে পারেনি। আপনারা সবাই মিলে জাহের ভাই এর জন্য দোয়া করবেন। সবাই মিলে দোয়া করলে আল্লাহ উনাকে সুস্থ করে আবারো আমাদের মাঝে পাঠাবেন। উনি সুস্থ হয়ে ফিরে আসলে অতীতের ভূল ত্রুটি সব ভূলে গিয়ে, আমরা উনাকে নিয়েই যেন আবারো সকলে একত্রিত ভাবে, আমাদের নতুন প্রজন্মের উজ্জল ভবিষ্যত গড়ার লক্ষ্যে কাজ করতে পারি।

ভাতিজা অয়ন ওসমানের জন্য দোয়া প্রার্থনা করে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য বলেন, অয়ন ওসমান জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিল। কিন্তু তার করোনা হয়নি। ডাক্তাররা কেউ বলছে ডেঙ্গু, কেউ বলছে টাইফয়েড, কেউ বলছে চিকনগুনিয়া। তার বাবা শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য। সেও তাঁর এলাকায় মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু অয়নের এমন অসুস্থ্যতা নিয়ে আমরা খুব চিন্তিত। শামীম ওসমানও ছেলের জন্য চিন্তিত। আপনারা অয়ন ওসমানের জন্য দোয়া করবেন যাতে করে আল্লাহ তাকে দ্রুত সুস্থ করে দেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে বন্দর উপজেলার চেয়ারম্যান এম.এ রশিদ বলেন, যারা সমাজের উন্নয়নের জন্য কাজ করেন। তাদের অনুপস্থিতিতে শূন্যতা তৈরি হয়। জাহের ভাই আজ আমাদের মাঝে অনুপস্থিত। আমার পাশের চেয়ারটি শূন্য মনে হচ্ছে। আল্লাহ যেন উনাকে দ্রুত সুস্থ্য করে আমাদের মাঝে ফিরিয়ে দেন। আবারো যেন উনি সমাজরে উন্নয়নের কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারেন।

দোয়া অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজিম উদ্দিন, মহানগর জাতীয় পার্টির আহবায়ক সানাউল্লাহ সানু, জেলা সেচ্ছাসেবক পার্টির আহবায়ক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, মহানগর যুবসংহতির সাধারণ সম্পাদক রিপন ভাওয়াল, ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান, ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হান্নার সরকার, ধামগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ, মুছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাকুসদ হোসেন, কলাগাছিয়া ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি বাচ্চু মিয়া, ১৯নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সভাপতি পলি বেগমসহ আরও অনেকে।

0
,