ভয়াবহ ডেঙ্গু জ্বরের ঝুকিতে গরুর ব্যবসায়ীরা, প্রতিরোধে নেই কেউ

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: প্রতিবছর কোরবানির ঈদের আগে নিজের বাড়ি পাবনা থেকে নারায়ণগঞ্জে গরু আনেন সাইফুল ইসলাম। এবারও এনেছেন ১৮টি। এসব গরুর প্রত্যাশিত দাম পাওয়া নিয়ে যেমন চিন্তিত, একই ভাবে চিন্তিত সুস্থ শরীরে বাড়ি ফেরা নিয়েও। কারণ, নারায়ণগঞ্জে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ।

সাইফুল ইসলামের সঙ্গে আসা তার ভাই শফিকুল ইসলাম, ভগ্নিপতি দুলালেরও একই কারণে ভাবতে ভাবতে কপালে ভাঁজ পড়েছে।

শফিকুল ইসলাম জানান, গ্রামে বন্যার পানির কারণে গরু গুলো রাখার জয়গা ছিলো না। এছাড়া ভালো স্থানে গরু রাখার আশায় একটু আগে ভাগেই এসে পড়তে হয়েছে। কিন্তু এসে ডেঙ্গণ জ্বর নিয়ে চিন্তায়ও পরেছেন তারা।

প্রানি সম্পদ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত বছর নারায়ণগঞ্জে ৯৭ হাজার পশু কোরবানী দেওয়া হয়েছিলো। এবার এ সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াবে প্রায় ১ লাখ। এ সকল পশু গুলোর সাথে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসছেন হাজার হাজার ব্যবসায়ী।

নারায়ণগঞ্জের সিটি করপোরেশন ও সদর উপজেলার বেশ কিছু হাটে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গরু নিয়ে আসা ব্যবসায়ী ও তাদের সহযোগীরা কোন রকম ভাবে রাত্রী যাপন করছে। ধূপের ধোঁয়া, কয়েল জ্বালিয়ে শুধু সময় পার করছেন। কেউ কেউ মশারী ছাড়াই গুমিয়ে আছে গরুর পাশে।

এদিকে জেলা সিভিল সার্জন অফিসের পরিসংখ্যান কর্মকর্তা বলছেন, গত মঙ্গলবার পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জে জেলার সরকারী হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গুলোতে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী চিকিৎসা সেবা নিয়েছেন ১০৬জন। তাদের মধ্যে ৪২জন ছাড়পত্র নিয়ে বাসা ফিরেছেন এবং বর্তমানে ভর্তি রয়েছেন ৩৭জন।

অন্যদিকে, বেসরকারি হিসেবে নারায়ণগঞ্জের ৩ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রন্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেছে।

এ ব্যাপারটি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ জানান, আমাদের হাটগুলোতে স্বাস্থ্য সেবা দেওয়ার জন্য তেমন কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি নেই। তবে, কেউ চিকিৎসা নিতে সরকারি হাসপাতালে আসলে ফিরিয়েও দেওয়া হবে না। এছাড়া হাটগুলো পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার মূলত দায়িত্ব সিটি করপোরেশনের। তাদের সাথে কথা বললে ভালো কোন সমাধান আসতে পারে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেডিকেল অফিসার ডা. শেখ মোস্তফা আলী জানান, আমাদের ডেঙ্গু নিধনে কার্যক্রম চলছে। পশুর হাট গুলোতেও মশা নিধন করা হবে। তবে, এখন হাটগুলোর জন্য তেমন কোন বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। তাই সকালে প্রধান নির্বাহী স্যারের সাথে কথা বলে দেখি কি করা যায়।

0