মাদকাসক্তদের সুস্থ করতে চাই আদর, ভালোবাসা ও আশ্বাস: বদরুল হক

প্রেস বিজ্ঞপ্তি, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: মাদক বিরোধী সচেতন সাগরিক ‘সমাজ-নারায়ণগঞ্জ’ এর আহবায়ক বদরুল হক বলেছেন, ‘আমরা গতানুগতিক বিবেচনার বাইরে মাদক প্রতিরোধে গত বছরের ২৩ জুন থেকে সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে প্রতিটা বিবেকবান মানুষকে মাদকের বিরুদ্ধে জাগ্রত ও প্রতিবাদী করে তুলতে চাচ্ছি।’

সোমবার (৮ এপ্রিল) বিকেলে হাজীগঞ্জ পানিরকল এসিআই এলাকাতে স্থানীয় যুব সমাজের সাথে মত বিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

সোমবার (৮ এপ্রিল) প্রেরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, মত বিনিময় সভাটির সভাপতিত্ব করেন মাদক বিরোধী সচেতন সাগরিক সমাজ-নারায়ণগঞ্জ এর উপদেষ্টা বীরমুক্তিযোদ্ধা শামসুদ্দিন প্রধান। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আবু হাসান টিপু, শফিকুল ইসলাম আরজু. খোকন রাজ প্রমূখ।

সভায় বদরুল হক বলেন, আমরা অদ্যাবধি অসহায়ের মতো প্রশাসনের উপর নিস্ক্রিয়তার দাঁয় চাপিয়ে এক রকম হাত পা গুটিয়ে বসে আছি। সমাজের এই ক্ষত সারাতে আমাদের কি কিছুই করার ছিলনা ! আমরা কি একবারও একজন মাদক গ্রহিতা কিংবা একজন মাদক বিক্রেতাকে মাদক সম্পর্কে নিরুৎসাহিত বা প্রতিরোধ করেছি? যদি প্রতিরোধ করেও থাকি, তা থেকে সমাজ কতটুকু উপকৃত হয়েছে সে প্রশ্ন থেকেই যায়।

তিনি বলেন, এতদিন মাদক নির্মূলের নামে কখনো কখনো কিছু মাদক উদ্ধার কিংবা কিছু ধরপাকড় ছাড়া আর কিছুই দেখিনি। হিসেব নিকেষ কষে দেখুন তাতে ফায়দা কি পেলাম। মাদক বিক্রেতারা আইনের ফাঁকফোকড় দিয়ে বেড়িয়ে এসে বীরদর্পে আরো ব্যাপকভাবে মাদক বাজারজাতে মনোনিবেশ করলো। যে মাদকসেবী আগে লুকিয়েছুপিয়ে সেবন করতো এখন পারলে সে প্রকাশ্যেও মাদক সেবনে লজ্জিত হচ্ছেনা। কারণ আজ সে সমাজের কাছে চিহ্নিত, নিন্দিত এক মানুষ, এক কথায় নেশাখোর।

তিনি আরও বলেন, আমরা চাচ্ছি সমাজের বিবেকবান মানুষ গুলোকে একাট্টা করে মাদকাসক্তকে চিকিৎসা সেবা প্রদান ও যোগ্যতা মাফিক কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রতৈরী করার পাশাপাশি তাদের জন্য  স্নেহ-মমতা, ভালোবাসার এমন এক আন্তরিক পরিবেশ তৈরী করা, যাতে তারা নতুন করে বাঁচতে শিখে। আমরা মনে করি তুচ্ছতাচ্ছিল্য বা বল প্রয়োগ করে সমাজকে মাদক মুক্ত করা সম্ভব নয়। মাদকের অভিষাপ থেকে সমাজকে মুক্ত করতে সবাইকে আজ জেগে উঠতে হবে। হাতে-হাত কাঁধে-কাঁধ মিলিয়ে মাদক কারবারিদেরকে প্রতিরোধ করতে হবে।

বদরুল হক আরও বলেন, আমরা প্রতিটি মাদকাসক্তের কাছে পৌছে দিতে চাই ভালোবাসা, আদর, আশ^াস ও ভরসার নিখাদ বানী। তাদেরকে একজন অসুস্থ মানুষ বিবেচনায়  স্নেহ-মমতা চিকিৎসা ও পরবর্তী সৎ উপার্যনের গেরান্টির মাধ্যমে ফিরিয়ে আনতে চাই সুস্থ জীবনে। মর্যাদার সাথে দাঁড় করাতে চাই আমার-আপনার পাশে। আসুন আগামী প্রজন্মকে বাঁচাতে দলমত নির্বিশেষে সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সামাজিক প্রতিরোধের দেয়াল গড়ে তুলি। মাদককে প্রতিহত করি।