মাদক ব্যবসায়ীদের হামলায় আহত রাসেলের বাসায় জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: মাদক বিক্রিতে বাধা দেওয়ায় হামলার শিকার আহত রাসেল মাহমুদকে দেখতে ‌গে‌ছেন জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতারা।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদের নেতৃত্বে জেলা বিএনপির একটি দল রা‌সে‌লের বাসায় গি‌য়ে খোজ খবর নেন।

মঙ্গলবার ( ১৬ মার্চ ) দুপুরে ফতুল্লা থানাধীন বিসিকে অবস্থিত রাসেলের বাড়িতে গিয়ে তার শারীরিক অবস্থার খোজ খবর ‌নেয়ার পাশাপা‌ষি রাসেলের উপর হামলার তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেন। তারা পুলিশ প্রশাসনের প্রতি দাবী জানি‌য়ে বলেন, রাসেলের উপর হামলাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হোক।

এ ছাড়া সাক্ষাৎকালে জেলা বিএনপির সকলে রাসেলের পরিবারের সকল সদস্যদের নির্ভয়ে থাকার আশ্বাস দেন। আহত রাসেল মাহমুদ নারায়ণগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে।

এসময় অধ্যাপক মামুন মাহমুদ ছাড়া অন্যান্য নেতৃবৃন্দদের মাঝে আরও উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, জেলা বিএনপি যুগ্ম আহ্বায়ক জাহিদ হাসান রোজেল, জেলা বিএনপির সদস্য মোঃ শাহআলম হীরা, একরামুল কবির মামুন, রিয়াদ মোঃ চৌধুরী, বোরহান বেপারি প্রমুখ।

রাসেলে বাড়িতে যাওয়া পুর্বে সকালে জেলা বিএনপির এই দলটি গ্রেফতার হওয়া ফতুল্লা ইউনিয়ন যুবদলের আহ্বায়ক আবদুল খালেক টিপুর বাসায়ও গিয়েছিলেন। রাসেলে গ্রেফতারের বিষয়ে তারা টিপুর পরিবারকে শান্তনা প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, মাদক ব্যবসায় বাঁধা দেওয়ায় গত ১৪ মার্চ বিকেলের দিকে বিসিক শিল্প নগরীর মার্টিন গার্মেন্টেসের সামনে মাদক ব্যবসায়ী বাবা ও ২ ছেলেসহ স্থানীয় ৭/৮ জন সন্ত্রাসীরা রাসেল মাহমুদকে কুপিয়ে আহত করে।

মার্টিন গার্মেন্টসের মালিক আলী আকবর জানান, ‘গার্মেন্টসের সামনে মাদক ব্যবসা হতো। এলাকাটির ছেলে রাসেল মাহমুদ বাঁধা দিলে তার উপরও হামলা হয়েছে।’

এ বিষয়ে এলাকাটির বিটের দায়িত্বে থাকা ফতুল্লা থানার অফিসার উপ-পরিদর্শক আব্দুর রাজ্জাক বলেছিলেন, সেখানে মাদক বিক্রি হয় আমরা জানি। বেশ কয়েকদিন আমি নিজে গিয়েও অভিযান চালিয়েছি। কিন্তু মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের উপস্থিতির সংবাদ পেয়ে পালিয়ে যায়। ব্যাপারটি পুলিশ পরির্দশক (তদন্ত) জানেন।

0