‘মানুষের ভেতর কোন ভয় নেই’

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: করোনা ভাইরাসের নতুন ধরণ অমিক্রন সংক্রমন বাড়তে শুরু করায় জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে এনসিসির ১২ নং ওয়ার্ডের খানপুরে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ করোনা হাসপাতালে (৩০০ শয্যাবিশিষ্ট) মাস্ক বিতরণ করেছেন ১২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) সকালে করোনা হাসপাতালে মাস্ক বিতরণ করেন শকু। মাস্ক বিতরণের সহযোগিতায় ছিলেন খন্দকার ফাউন্ডেশন।

তিনি বলেন, এটা খুবই ভয়াবহ। মানুষের ভেতর কোন ভয় নেই। করোনা হাসপাতালের ভেতরেও রোগী, রিক্সাওয়ালা কারও মাস্ক নেই। ওমিক্রনে প্রতিদিন সংক্রমন বাড়ছে। আমাদের সচেতনতার অনেক অভাব। আমরা এখনই সচেতন না হলে এটা প্রতিরোধ করা বেশ কঠিন হয়ে পড়বে। সকলকে মাস্ক পরতে হবে। কারন এটাই আমাদের করোনা থেকে সুরক্ষা দেবে। করোনা প্রতিরোধে সচেতনতায় আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী নামের একটি সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে ইতিমধ্যে ৩০ হাজারের বেশী মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে বলে গণমাধ্যমের সূত্রে জানতে পেরেছি। এজন্য তাদেরকে সাধুবাদ জানাই।আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের মতো আরো যেসব সেচ্ছাসেবী সংগঠন রয়েছে তাদেরকেও এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

মাস্ক বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে সদ্য যোগদানকৃত আরপি ডা: দেবরাজ মালাকার ও ডা: সাখাওয়াত হোসেন। এসময় চিকিৎসকদ্বয় করোনার নতুন ধরণ অমিক্রণ সংক্রমন ক্রমশই বাড়ছে। এজন্য সচেতনতার কোন বিকল্প নাই। সবাইকে নিয়মিত মাস্ক পড়ার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আহবান জানান তারা। এছাড়া করোনা হাসপাতালে রোগী ও টিকা নিতে আসা সাধারণ মানুষের মধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে মাস্ক বিতরণ করায় কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকুকে সাধুবাদ জানান তারা। কাউন্সিলর শকুর মতো অপরাপর জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তারা। এভাবে সবাই এগিয়ে আসলে বিগত দিনের ন্যায় এবারো করোনা মোকাবেলায় সফল হওয়া যাবে বলে মনে করছেন চিকিৎসকদ্বয়।

উল্লেখ্য আগে করোনা মহামারি প্রকট আকার ধারণ করলে এগিয়ে আসেন শকু ও তার টিম কুইক রেসপন্স। করোনা আক্রান্তদের সেবা ও মরদেহ দাফনের মাধ্যমে বেশ আলোচিত হয়েছিলেন তিনি।