মানুষ চিরদিন থাকবে না, কর্ম বাঁচিয়ে রাখে: সালমা ওসমান

0

বন্দর করেসপন্ডেন্ট : কোন প্রকার বাধা বিপত্তি মাথায় না রেখে দেশ ও জনকল্যানে নিজেদের নিয়োজিত রাখতে হবে। মানুষ চিরদিন বেঁচে থাকবে না। শুধু থাকবে তার কর্মফল। আপনি দেশ ও জাতির জন্য কিছু করে গেলে মৃত্যু ‘র পরও মানুষের হৃদয়ে থাকা যায়। ভাষা আন্দোলনে যারা অংশ গ্রহন করেছিলেন তাদের সম্মানে যে সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়েছে এটাই তার প্রমান। ভাল কর্ম যুগের পর যুগ তাকে বাচিয়ে রাখে।

জাতীয় মহিলা সংস্থা নারায়ণগঞ্জ জেলার চেয়ারম্যান ও এমপি শামীম ওসমানের স্ত্রী সালমা ওসমান লিপি বন্দরের এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

২৬ ফেব্রুয়ারি( শুক্রবার) বিকেলে এনসিসি’র ২৩ নং ওয়ার্ড এলাকায় হাজী সিরাজ উদ্দিন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ৫২’র ভাষা আন্দোলনের বীর সৈনিকদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ, বন্দর থানা কমিটি কর্তৃক আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি সালমা ওসমান লিপি ও বিশেষ অতিথি নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা উপস্থিত ছিলেন।

সালমা ওসমান লিপি তার বক্তব্যে আরো বলেন, দেশের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন। তিনি অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। উন্নত বিশ্বে যেখানে করোনাকালীন সময়ে হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে জননেত্রী শেখ হাসিনার সুচারু পদক্ষেপে বাংলাদেশে তেমন বেগ পেতে হয়নি। ঘরবন্দি মানুষের বাড়িতে বাড়িতে খাবার পৌছানোর ব্যবস্থা করেছেন। একমাত্র বঙ্গবন্ধুর কন্যা বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। আমাদের মনে রাখতে হবে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব থাকলেই আমরা সম্পূর্ণ নিরাপদে থাকব। আমার নেত্রীর জন্য আপনারা দোয়া করবেন।

বিশেষ অতিথি নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা বলেন, লিপি ভাবি একজন মহিয়ষী নারী। উনি ওনার অনেক ব্যস্ততার মাঝেও এখানে উপস্থিত হয়েছেন, তাকে অনেক ধন্যবাদ। আজকে আমি এখানে বক্তব্য দেয়ার জন্য নয়, ওনার বক্তব্য শোনার জন্য এসেছি। আমরা অনেক নির্যাতন সহ্য করে এই পর্যন্ত এসেছি, অনেক আন্দোলন সংগ্রাম করতে হয়েছে এ পর্যন্ত আসতে। তবুও নেত্রীর হাত ছাড়ি নাই। আজ আমি শ্রদ্ধার সাথে স্মরন করছি আমাদের নেতা জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানকে।

মহানগর আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ন কবির মৃধার সঞ্চালনায় ও শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ বন্দর থানা শাখার সভাপতি মুজাহিদ কবীর মৃধা (পিয়াস)’র সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সাদারন সম্পাদক কাজিম উদ্দিন প্রধান, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, মহানগর সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, ইশরাত জাহান খাঁন স্মৃতি, ধামগড় ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ, ২৬ নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনুু, মহানগর ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক হাসনাত রহমান বিন্দু, আওয়ামী লীগ নেতা আলমগীর হোসেন, শহিদুল হাসান মৃধা, য়ুবলীগ নেতা ফারুক প্রধান, মহানগর ছাত্র লীগের সহ সভাপতি রাজু আহম্মেদ সুজন, রমজান মিয়া, আক্তার হোসেন, জিয়াবুল হাসান বাবু, শ্যামল মৃধাসহ ভাষা সৈনিকদের পরিবারের লোকজন ও দলীয় নেতাকর্মীরা।

অনুষ্ঠানে ৯ জন ভাষা সৈনিকদের সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে মরণোত্তর ৮ জন মফিজুল ইসলাম, হাজী আশেক আলী মৃধা, শফিউল্লাহ মৃধা, হাজী মোঃ হাসান, আহসান উল্লাহ মৃধা, ফুলমিয়া চৌধুরী, আলাউদ্দিন, ইউনুস খাঁন। এবং জীবিত এম এ আসগরসহ ৯জন ভাষা সৈনিকদের সংবর্ধনা দেয়া হয়।

0
,