‘মামলা ষড়যন্ত্রের অংশ, আসামী ধরা বহু মুশকিল ব্যাপার’

0

সিদ্ধিরগঞ্জ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ঘটনা ১নং ওয়ার্ডে, অথচ মামলা দেয়া হলো ১ থেকে ১০ নং ওয়ার্ড পর্যন্ত আওয়ামীলীগের ৭৫ জন নেতাকর্মীর নামে। এই মামলাটা করলো কে? কি উদ্দেশ্য করলো?

এমনটাই প্রশ্ন রেখে বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। রোববার (২৮ জুলাই) বিকালে সিদ্ধিরগঞ্জের এসওরোড এলাকায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এক জনসভায় তিনি প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো. জুয়েল হোসেন সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এড. মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাউসার।

শামীম ওসমান আরো বলেন, মামলায় যাদের আসামী করা হয়েছে, তাদেরকে ধরা বহু মুশকিল ব্যাপার। কারণ আমরা কিন্তু এমপি হওয়ার জন্য রাজনীতিতে আসিনি, আমরা বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের জন্য রাজনীতিতে আসছি।

শামীম ওসমান বলেন, মামলায় ব্যবসায়ীদের নামও বাদ যায়নি। ব্যাপারটি নিয়ে এ মিটিং আসার আগে আমার সাথে এসপি সাহেবের সাথে কথা হয়েছে। ঢাকার ডিআইজিও অবগত হয়েছে।

পুলিশ সুপারের বরাদ দিয়ে শামীম ওসমান বলেন, ‘আমাকে পুলিশ সুপার বলেছেন, এ মামলায় যাদের নাম দেওয়া হয়েছে, অন্যায় ভাবে নাম দেওয়া হয়েছে। আমি মনে করি এইটা একটা ষড়যন্ত্রের অংশ।

এসময় জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথ।এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মিয়া, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হাসান নিপু, নাসিক প্যানেল মেয়র মতিউর রহমান মতি, নারায়ণগঞ্জ জেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মন্ডল প্রমূখ।

0