মূল সড়কে ভয়ঙ্কর ‘ওরা’, পথ আটকে বলে ‘টাকা দে’

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘মার্কেট থেকে বই কিনে রিকশায় উঠলো স্কুল ছাত্রী সাদিয়া। চাষাঢ়া থেকে দেওভোগের দিকে যাচ্ছে সে। মাঝপথে জ্যামের জন্যে রিকশার গতি খানিকটা কমলো। এমন সময়েই বস্তা হাতে রিকশার সামনে হাজির এক যুবক। বেশ-ভুষো দেখে বোঝা যায়, পথেই থাকা পড়ে তার। যুবক টাকা দিতে বলে সাদিয়াকে। তবে সে অসম্মতি জানায়। আর তাতেই খেপে উঠে যুবক। অকথ্য ভাষায় গালাগালি করতে শুরু করে ও বস্তা থেকে একটা লাঠি বেড় করে ভয় দেখাতে শুরু করে। এতে করে অনেকটা ভীত হয়ে যায় সাদিয়া’

আবার, বুধবার (১০ জুলাই) ২নং রেলগেটের সামনে এমনই এক ঘটনার শিকার হন সালেহ মাহমুদ। তার দেওয়া ভাষ্য মতে, ‘ফুটপাত দিয়ে হাটার সময় এক চেংরা ছেলে আমার পা ধরে বসে। বারবার টাকা দিতে বলে, আর টাকা না দিলে পা ছাড়বে না বলছিল সে। তাকে দেখে মনে হয়, সে মানসিক রোগী। একে আগেও দেখেছি, ও প্রায় এমন ঘটনা ঘটায়। আরও এক হিজরে দেখেছি যে এমন করে।’

সোশ্যাল মিডিয়ায় এ জাতীয় ঘটনা নিয়ে অনেকেই নিজেদের ভোগান্তির কথা তুলে ধরছেন। জনপ্রিয় ফেসবুক গ্রুপ ‘নারায়ণগঞ্জস্থান’ এ এমন ধরণের পোস্ট হরহামেশায় দেওয়া হয়। তেমনিভাবে, বুধবার (১০ জুলাই) গ্রুপে এমন একটি অভিজ্ঞতার কথা প্রকাশ করা হয়। পোস্টে জানানো হয়, পথে রিকশা থামিয়ে এক তরুণী থেকে টাকা চেয়ে বসে এক যুবক। পরণে খানিকটা ভিন্ন ধরণের পোশাক ও চেহারায় মেক-আপ। তরুণী টাকা না দেবার কথা বললে তাকে ভয় দেখাতে শুরু করে। অনেকেই এ যুবকটিকে সড়কে দেখেছেন। বেশ-ভুষা ভিন্ন ধরণের বলে কেউ কেউ আবার হিজরাও বলে থাকে তাকে।

চাষাঢ়া হতে নিতাইগঞ্জ সড়কে এমনইভাবে নানা হয়রাণীর শিকার হচ্ছেন নগরবাসী। জানা গেছে, সড়কটিতে কিছু লোক রয়েছে যারা হুট করেই পথচারীদের থেকে টাকা চাওয়া শুরু করে। আর টাকা হাতে না দিলে পা ধরে বসা, গালাগালি করা, কাপড় খুলে ফেলাসহ নানা হয়রানীমূলক কাজ করে থাকে। পরিবার নিয়ে বের হলে রাস্তায় এ প্রকৃতির লোক আসলে অনেকটাই নাজেহাল অবস্থা হয়। সেইসাথে ময়লা হাতে শরীর ধরে বসলে অনেকেই হকচকিয়ে যান। এই কারণে সড়কে তরুণী ও কিশোরীরা একাকী যাতায়াতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এ বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ আশা করছেন অনেকেই। তাদের আবদার ‘দ্রুত এ জাতীয় লোকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক।’

এব্যাপারে কথা হয় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল ইসলামের সাথে। তিনি লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, আমরা দ্রুত এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিব। আমরা চেষ্টা করবো, এমন ঘটনা যেন আর না ঘটে।

0