মৃত নারীর সংস্প‌র্শের ওয়ার্ডবয় আই‌সো‌লেশ‌নে, কোয়ারেন্টিনে চি‌কিৎসকসহ ৮

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বন্দরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করা ওই নারীর সংস্পর্শে থাকা হাসপাতালের এক ওয়ার্ডবয়কে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এ ছাড়াও ওই নারীর চিকিৎসা প্রদানকারী এক ডাক্তারসহ আরও ৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার (৩ এপ্রিল) ব্যাপারটি নিশ্চিত করে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ওই রোগীকে সেবা দান কালে যে ওয়ার্ডবয় বেশী কাছে ছিলেন তাকে জেলা করোনা আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া ওই রোগীকে নারায়ণগঞ্জের একটি হাসপাতালের সেবা প্রদানকারী চিকিৎসক, নার্স, এ্যাম্বুলেন্স ড্রাইভার, প্রাইভেট ল্যাবের ল্যাব টেকনিশিয়ান, এক্সরে টেকনিশিয়ান, আয়া ও চেম্বার এসিস্ট্যান্টকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

গত ২৯ মার্চ বন্দর উপজেলার রসুলবাগ এলাকার ৪৫ বছর বয়সী এক নারী শ্বাসকষ্ট ও জ্বর নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় স্বজনরা। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ওই নারীকে রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য পরামর্শ দেয়। স্বজনেরা ওই দিন ওই নারীকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে না নিয়ে নারায়ণগঞ্জের বাড়িতে ফেরত নিয়ে আসে। গত ৩০ মার্চ আবার অসুস্থ হয়ে পড়লে রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। কুর্মিটোলা হাসপাতালে ওই নারীর নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআর এ পাঠায়। তিন দিন পর আইইডিসিআরের পরীক্ষায় ওই নারীর করোনাভাইরাস পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

এদিকে, মৃতের পরিবারের ৭ সদস্যসহ নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের রসূলবাগ এলাকার প্রায় ১০০ পরিবারকে লকডাউন করা হয়।

0