মোরগ খুঁজতে গিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় আটক ২

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: হারানো মোরগ খুঁজতে গিয়ে ১৪ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক জন ও ধর্ষণের সহযোগীতার অভিযোগে আরও একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) ভোরে আড়াইহাজার উপজেলার ডেঙ্গুরকান্দী গ্রামে থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার যুবকের নাম মৃত রমজান আলী আপন (২০)। আর সহযোগীতার অভিযোগে গ্রেপ্তার হয় সুরুজ মিয়ার ছেলে মাহাবুব (১৯)। তারা দু’জনই আড়াইহাজার উপজেলার ডেঙ্গুরকান্দী (সায়েদাবাজ) এলাকার ছেলে। ]

ভুক্তভোগী কিশোরী জানান, ধর্ষণের অভিযুক্ত আপনের বাড়ির পাশেই পরিবারের সাথে বসবাস করতেন ওই কিশোরী। ২০ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় কিশোরীদের একটি মোরগ পাওয়া যাচ্ছিলো না। মোরগ’টির খুঁজে বাড়ির পাশে চকে বের হয়। ওই সময় একা পেয়ে প্রতিবেশী আপন মুখ চেপে ধরে তুলে নিয়ে যায় ডেঙ্গুরকান্দি সায়েদাবাদ জঙ্গলে। সাথে ছিল মাহাবুবও। রাত ১১টা পর্যন্ত আটকে রেখে মাহাবুব হাত-পা ধরে আর আপন ধর্ষণ করে। এ ঘটনার পর বাড়ি ফিরে কিশোরী অভিভাবকদের জানান। পরে আড়াইহাজার থানা পুলিশের দারস্ত হন ভুক্তভোগীর মা।

২২ ফেব্রুয়ারি আড়াইহাজার থানায় ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে অভিযুক্ত ২ জনের নামে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

আড়াইহাজার থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) সজিব আহমেদ বলেন, আমি আমাদের সঙ্গীয় ফোর্সের সহায়তায় মামলা এজাহারভুক্ত দুই আসামী আপন ও মাহবুবকে গ্রেপ্তার করা হয়। ভিকটিকের ডাক্তারি পরীক্ষা ও ২২ ধারা জবানবন্দী সম্পন্ন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে আসামীদের আদালতে প্রেরন করা হয়েছে এবং ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি নজরুল ইসলাম জানান, ১৪ বছর বয়সী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় অভিযুক্ত দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

0