রফিউর রাব্বি ‘গডফাদারের কাছে প্রশ্ন, সন্ত্রাসীদের হাত কত লম্বা?’

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘যারা অস্ত্রবাজী করে, তারাই আবার সরকারের উন্নয়নের গুন গানও করে। তারা সংসদে দাঁড়িয়ে প্রশ্ন করে, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজদের হাত কত লম্বা? এখন আমরা সন্ত্রাসের গডফাদারের কাছে প্রশ্ন করছি- সন্ত্রাসীদের হাত কত লম্বা, দাত কত লম্বা, জিব্বাহ কত লম্বা?’

সোমবার (৮ জুলাই) সন্ধ্যায় নগরীর চাষাঢ়া শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে এ কথা বলেন সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বি। এসময় নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের আয়াজনে ত্বকী হত্যায় চিহ্নিত আসামীদের গ্রেপ্তার ও বিচার শুরুর দাবিতে প্রতিবাদ সভাটি করা হয়।

এসময় রফিউর রাব্বি বলেন, ‘সরকারের পৃষ্ঠপোষকতার কারণেই তারা এ দাম্বিকতার সুযোগ পাচ্ছে। ভিওআইপির ১‘শ ৩ কোটি টাকা আত্মসাত করার পরেও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করে নাই। সরকারের ৮‘শ কোটি টাকা আত্মসাত করার পরেও ব্যবস্থা গ্রহণ করে নাই।’

তিনি বলেন, এ হত্যাকারিদের খুন করতে লজ্জাবোধ হয় না। কিন্তু আমরা যখন তাদের খুনি বলি, তারা খুব লজ্জিত হয়। এ পরিবারের ছত্রছায়ায় যারা মাদক বিক্রি করে, চাদাবাজী করে, লাশের পর লাশ ফেলে, সন্ত্রাস করে বেড়ায় তখন লজ্জা হয় না। কিন্তু আমরা যদি মাদক ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাস বলি তাহলেই তাদের লজ্জা লাগে। আমরা যখনই ওই পরিবারের বিচারের আওতায় আনার দাবি করি, তখনই যারা মাদক ব্যবসায় করে, জুয়ার বোড চালায়, সন্ত্রাস করে। তারা কথা বলা শুরু করে।

তিনি বলেন, এই খুনি পরিবারের টাকায় ৫-৭টি পত্রিকা প্রকাশিত হয়; একাধিক অনলাইন তারা চালায়। এই পত্রিকা অনলাইনের কাজ হচ্ছে ওই খুনিদের অপরাধ ধামাচাপা দিয়ে তাদের গুণগান করা এবং তাদের বিরুদ্ধে যারা কথা বলে তাদের চরিত্র হনন করা। এরাই আবার জুয়ার বোর্ড বসায় এবং মাদক ব্যবসা করে। তারা এইসব করে নারায়ণগঞ্জকে অশান্ত করার চেষ্টা করে এবং তরুণদের চরিত্র কলুষিত করার চেষ্টা করে। খুনি, সন্ত্রাসীদের ছত্রছায়ায় যারা অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে। এ সন্ত্রাসীর সেল্টারদাতারা চলে গেলে তারা কতক্ষন নারায়ণগঞ্জে থাকে। আমার সেটা দেখতে চাই। সকল অপকর্মের হিসাব নেওয়া হবে। যারা মনে করে, এই খুনিরা একটা কথা বললো আর তাদের পয়সায় ছাপানো পত্রিকা ও অনলাইনে তা বিশাল আকারে ছাপানো হলে নারায়ণগঞ্জের মানুষ ভয় পাবে আর এই খুনিদের বিরুদ্ধে কথা বলা বন্ধ করে দেবে; যারা এমনটাভাবে তারা বোকার স্বর্গে বাস করছে।

প্রয়াত সাংসদ পুত্র আজমেরী ওসমান প্রকাশ্যে দাঁড়িয়ে থেকে মিঠুকে হত্যা করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, মিঠুর বাবা থানায় মামলা দিতে চাইলে, পুলিশ বলেছে আজমেরী ওসমানের নাম দেয়া যাবে না। দেড় বছর পর মিঠুর বাবা মৃত্যুবরণ করেছে।

নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি এড. জিয়াউল ইসলাম কাজলের সভাপতিত্বে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি এড. মাহবুবুর রহমান মাসুম, সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব কবি সাংবাদিক হালিম আজাদ, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) জেলা সমন্বয়কারী নিখিল দাস, জেলা সিপিবির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা ভবানী শংকর রায়, গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়কারী তরিকুল সুজন, নির্বাহী সমন্বয়কারী অঞ্জন দাস প্রমুখ।

১৫৭
0