রমজানে প্রকট হতে পারে যানজট, দুশ্চিন্তায় নগরবাসী

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: যানজটে অভ্যস্ত হলেও নানা কারণে বেশ কিছুদিন ধরে এই সমস্যা প্রকট নারায়ণগঞ্জ। এ পরিস্থিতিতে আসছে রমজানে এই ভোগান্তি কোন পর্যায়ে যাবে তা নিয়ে এখনই দুশ্চিন্তায় নগরবাসী। যদিও কর্তৃপক্ষ শোনাচ্ছেন আশারবানী। তবে নাগরিক কমিটি বলছেন, পরিবর্তন আনতে হবে পরিবহন ব্যবস্থাপনায়।

যানজট এখন জড়িয়ে গেছে নারায়ণগঞ্জের নিয়তির সঙ্গে। অবৈধ পার্কিং, বহিরাগত রিক্সা, যত্রতত্র গাড়ি থামিয়ে লোক উঠানো নামানোর প্রভাবও পড়েছে রাজপথে। এমন বাস্তবতায় এখন আবার দরজায় কড়া নাড়ছে রমজান মাস। আর রমজান মানেই রাজপথে বাড়তি চাপ।

বিশেষ করে রোজার প্রথম দিকে অফিস ছুটির পর ছোটাছুটি বাড়ে নগরজুড়ে। এছাড়া ফুটপাতে বসে ইফতার বাজার। ক্রমেই বাড়তে থাকে মার্কেট কেন্দ্রিক চাপ। এবার রমজানে জন-দুর্ভোগ কমাতে এ বিষয়গুলো বিবেচনায় নিয়ে পুরো মাসের ট্রাফিক প্লান সাজানো হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী এ, এফ, এম, এহতেশামূল হক বলেন, আমরা নিয়মিতই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করছি। আপনারা যানেন কাদের ইশারায় এখানে হকার ও অবৈধ স্ট্যান্ড বসে। যখন উচ্ছেদ অভিযান চলে, কিছু ক্ষন পরই ফুটপাত ফের আগের অবস্থায় ফিরে আসে। তাই স্থায়ী ভাবে উচ্ছেদ করতে প্রশাসনের সহযোগীতা ও কঠোর অবস্থান প্রয়োজন। তা না হলে আমার উচ্ছেদ করে যাবো, আর ওরা বসেই যাবে।

ট্রফিক পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সালে উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, পবিত্র মাহে রমজানে মার্কেট কেন্দ্রিক ও ঈদ সামনে রেখে ট্রাফিকের পাশাপাশি নিরাপত্তার জন্যও বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। যত দিন যাবে, মানুষের নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য ততই জনবল বৃদ্ধি করা হবে।

তবে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায়ও পরিবর্তন আনার কথা বলে নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের রিক্সা ঢোকতে না দেওয়া এবং বাস পরিবহন মালিকদের নিয়ন্ত্রণাধীন বিভিন্ন ছোট বড় পরিবহন নিয়ন্ত্রণে আনা হলে যানজট অনেকটা কমে যাবে। এ জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে আমার ইতোমধ্যেই পুলিশ প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের জন্য ২ জন ম্যাজিষ্ট্রেট চেয়েছি।

0