রূপগঞ্জে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে হত্যাচেষ্টা, স্বামী শ্রীঘরে  

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: রূপগঞ্জে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের দায়েরকৃত একটি মামলায় ১ জনকে ১ বছর ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড ও ৩০ হাজার টাকার অর্থদন্ডে দন্ডিত করেছে আদালত।


সাজাপ্রাপ্ত আসামি হলেন- কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দী বাজার খাসমহল এলাকার মৃত. তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মো. নিজাম উদ্দিন (৩২)।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নারী ও শিশু  নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের বিচারক মোহাম্মদ শাহীন উদ্দিন এ রায় ঘোষণা দেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, আসামি মো. নিজাম উদ্দিন সাথে দশ বছর আগে পরিবারকে না জানিয়ে রূপগঞ্জ থানার দক্ষিন রূপসি এলাকার মো. আবু সিদ্দিক এর কন্যা কল্পনা আক্তার (২৬) এর বিয়ে হয়। কিন্তু পরবর্তীতে বাদী কল্পনার পরিবার এ বিয়ে মেনে নেয়।

বিবাহের কিছু দিন পরে বাদীর বাবা জমি বিক্রি করে আসামিদের চাহিদা অনুয়ায়ী ১ লাখ ২০ হাজার টাকা নগদ প্রদান করেন। এছাড়াও বাদীর স্বামী অসুস্থ হলে তার পরিবার নগদ ৩৫ হাজার টাকা দেয় ও বিভিন্ন জায়গা থেকে ঋন তুলে দেয়। পরবর্তীতে সে কিস্তিগুলো বাদীনির পরিবারকে পরিশোধের জন্য আরো যৌতুক চাইলে ৪টি কিস্তি বাবদ মোট ৫০ হাজার টাকা পরিশোধ করে দেয়। এছাড়াও মেয়ের সুখের জন্য বাদীনির বাবা স্বর্ণলংকার, টিভি, খাট, ওয়ার্ড্রব, ছোফাসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র প্রদান করে।

বর্তমানে বাদীনি আসামির ঔরসের ২ সন্তানের মা। বিবাহের পর থেকে বিভিন্ন সময় আসামি বাদীনির নিকট থেকে দাবী করে। এত যৌতুক দেওয়ার পরেও নতুন করে ব্যবসা করার জন্য আরও ২ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে। যৌতুক দিতে অনীহা করলে অমানুষিক ভাবে মারপিট করে। এবিষয়ে দাউদকান্দী থানায় একাধিক বার বিচার শালিশ হয়েছে।

নিজাম বাসায় যৌতুকের জন্য তার স্ত্রীকে মারধর করতো। ২০১৬ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর শনিবার দুপুর ২ টার সময় বাদীনিকে ২ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে মারধর করে হত্যার উদ্দেশ্যে বাদীনির গলায় ওড়না পেচিয়ে দম বন্ধ করার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে বাদীনি অজ্ঞান হয়ে যায়। তখন সাক্ষীগণ বাদীনিকে এসে উদ্ধার করে। সে সময় আসামি দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে সকলে সাহায্য সহযোগীতায়  স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করা। সেখান থেকে সুস্থ্ হয়ে ফিরে বাদীনি বিজ্ঞ আদালতে এসে স্বামীসহ ৩ জনের বিরূদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের একটি মামলা দায়ের করেন যার নং-৭১/১৬।

0