রেল স্টেশনে মার্কেট নির্মাণের প্রতিবাদে বাসদের বিক্ষোভ মিছিল

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ রেল স্টেশন সংলগ্ন ভূমি জনস্বার্থে ব্যবহার না করে কল্যাণ ট্রাস্টের নামে মার্কেট নির্মাণের চক্রান্তের প্রতিবাদে সমাবেশ ও শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ।

সংগঠনটির নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার উদ্যোগে সোমবার বিকাল ৪ টায় ২ নং রেল গেইটে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।

বাসদ নারায়ণগঞ্জ জেলার আহ্বায়ক নিখিল দাসের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা কমিটির সদস্যসচিব আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, মটর মেক্যানিক ইউনিয়নের নেতা তাজুল ইসলাম, ১ নং রেল গেটস্থ শীতলা মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক শান্তি রঞ্জন দাস।

নিখিল দাস বলেন, নারায়ণগঞ্জ রেলের ৪৭,২০০ বর্গফুট জায়গায় রেল কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের নামে মার্কেট নির্মাণ করার ষড়যন্ত্র চলছে। নারায়ণগঞ্জ রেলের ভূমি রেলের কাজে না লাগলে তা নারায়ণগঞ্জবাসীর কল্যাণে ব্যবহার করতে হবে। কারণ এই জমি ১৮৮২ সালে নারায়ণগঞ্জের মানুষের কাছ থেকে অধিগ্রহণ করা হয়েছে। সুতরাং এটির মালিক নারায়ণগঞ্জের জনগণ, রেলের কর্মকর্তা-কর্মচারী নয়। এ সংক্রান্ত ভূমি অধিগ্রহণ আইনেও বলা আছে অধিগ্রহণের ভূমি যদি সংশ্লিষ্ট সংস্থার কাজে না লাগে তাহলে তা পূর্বের মালিককে ফিরিয়ে দিতে হবে। এ জায়গার মধ্যে ৬৩০০ বর্গফুটের একটি মন্দিরও রয়েছে, তাতে হাইকোর্টেও স্থগিতাদেশ জারিও রয়েছে। অথচ উচ্ছেদ অভিযানে মন্দিরের একাংশ ভাঙ্গা হয়েছে। এছাড়া রেলওয়ের ভূমি ইমারত ও বিভাগীয় ভূসম্পত্তি কর্মকর্তা, বাংলাদেশ রেলওয়ের ডেপুটি কমিশনার উচ্ছেদের যে নোটিশ দিয়েছে তাতে স্পষ্ট করেছে কল্যাণ ট্রাস্টের অনুকূলে এটি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, যা অগ্রহণযোগ্য। গত ১৬ ফেব্রুয়ারী তথাকথিত কল্যান ট্রাস্ট রেলওয়ের ৪৭ হাজার ২ শ বর্গফুট ভূমি তাদের আয়ত্তে আনে এবং বেড়া দিয়ে ঘিরে ফেলে। উচ্ছেদ নোটিশে এসপি, ওসি, স্টেশন মাস্টারসহ কিছু সংস্থাকে অবগত করলেও রেল মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, সচিব, মহাপরিচালককে অবগত করা হয়নি অর্থাৎ প্রক্রিয়াটিই বেআইনিভাবে চলেছে।

অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বলেন, ইতিমধ্যে বালুর মাঠের জায়গা রাজউকের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তারা স্থানীয় প্রভাবশালীদের সাথে নিয়ে বিক্রি করে দিয়েছে। এইভাবে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের জায়গা দুর্নীতিবাজরা ভূমিদস্যুদের সহায়তায় আত্মসাৎ করছে। নারায়ণগঞ্জের জনগণের কল্যাণে পার্ক-খেলার মাঠ, হাসপাতাল, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না করে মার্কেট নির্মাণের মাধ্যমে লুটপাট করার ষড়যন্ত্র রুখে দিতে নারায়ণগঞ্জের জনগণকে রাজপথে নামতে হবে। এছাড়া যেহেতু কদমরসুল সেতু ৫নং ঘাটে হবে, ফলে সেতুর সংলগ্ন প্রশস্ত রাস্তা ও খালি জায়গা প্রয়োজন। ফলে এখানে মার্কেট হলে দূর্ঘটনাও বেড়ে যাবে। গত কিছুদিন আগে ১নং রেলগেটে রেল-বাসের দুর্ঘটনায় ৪ জনের জীবনহানি হয়েছে।

নেতৃবৃন্দ নারায়ণগঞ্জের সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সম্পত্তি আত্মসাৎ করার বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য নারায়ণগঞ্জের লড়াকু জনগণের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।