শিক্ষক থেকে যেভাবে ‘ভয়ঙ্কর ধর্ষক’ আল আমিন

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ২০ স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ২ শিক্ষককে ২৭ জুন গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে ৪ জুলাই ১২ শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয় এক মাদ্রাসা শিক্ষক। আজ (৭ জুলাই) আদালতের কাছে দেওয়া পুলিশের প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদনে সেই ধর্ষণের ‘ভয়ঙ্কর’ বর্নণার আংশিক চিত্র ফুটে উঠেছে। বিষয়গুলো নিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই শিক্ষককে ৫ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার নির্দেশও দিয়েছে আদালত।

পর্নোগ্রাফি এ্যাক্ট, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে র‌্যাবের দায়ের করা একটি মামলায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কাউসার আলম ৫ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার নির্দেশ প্রদান করে। এর আগে, ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আসামীকে আদালতে উঠায় পুলিশ।

রিমান্ড প্রাপ্ত ধর্ষক কুমিল্লা জেলার ভাংগরা থানার দীঘিরপাড় পূর্ব পাড়া এলাকার মৃত আব্দুল জলিল ওরফে রেনু মিয়ার ছেলে আল আমিন। সে ফতুল্লার মামুদপর বায়তুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা, পরিচালক ও প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। এছাড়া ফতুল্লার একটি মসজিদের ইমামও ছিলেন তিনি।

পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে বলা হয়, শুরুতে পানি খাওয়ান, রুমে ঝাড়ু দেওয়া, বই পত্র আনা নেওয়াসহ বিভিন্ন অযুহাতে কোমলমতি শিশু ছাত্রীদের ছোঁয়ার চেষ্টা করতেন মাদ্রাসা শিক্ষক আল আমিন। এক পর্যায়ে, ওই যৌন হয়রানি রূপ নেয় ধর্ষণে। এক এক করে ৩য় থেকে ৫ম শ্রেণির ১২ ছাত্রীকে ধর্ষণও করে এ ভয়ঙ্কর ধর্ষক।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০১৩ সালে ফতুল্লার মামুদপুরের পাকার মাথা এলাকায় বায়তুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠা করা হয়। আল আমিন মাদ্রাসাটির শিক্ষকতা করার সুবাদে ২০১৮ সাল থেকে মাদ্রাসাটির ওই ১২ জন শিশু শিক্ষার্থী আল আমিনের লালশার শিকার হয়ে আসছে। কখনও বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন, ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর পূর্বক ভাবে ধর্ষণ করেছে। আবার কখনও অশ্লীল ছবি ও ভিডিও দেখিয়ে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানী করেছে।

এর আগে, ৪ জুলাই ফতুল্লার মাহমুদপুর এলাকার বায়তুল হুদা ক্যাডেট মাদরাসায় অভিযান চালিয়ে মাদরাসাটির অধ্যক্ষ মাওলানা আল আমিনকে আটক করে র‌্যাব-১১। র‌্যাব তার কাছ থেকে বেশ কিছু পর্নো ভিডিও উদ্ধার করে।

পরে আল আমিনের বিরুদ্ধে নির্যাতনের শিকার ছাত্রীদের পরিবারের পক্ষ থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি এবং র‌্যাবের পক্ষ থেকে পর্নোগ্রাফি আইনে আরেকটি মামলা করা হয়।

৬১৪
0