শিক্ষাঙ্গনে দলীয় ছাত্র সংগঠন দিয়ে সন্ত্রাস ও ভয়ভীতি বজায় রেখেছে: ইলিয়াস জামান

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে ছাত্র ফেডারেশন নারায়ণগঞ্জ জেলার উদ্যোগে ওয়াজিউল্লাহ, বাবুল, মোস্তফা, সুন্দর আলীসহ আরও অনেক নাম না জানা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেছে। শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩ টায় নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ছাত্র নেতৃবৃন্দরা।


এসময় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি ইলিয়াস জামান, সাধারণ সম্পাদক ফারহানা মুনা, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক ইউশা ইসলাম, নতুনকোর্ট আঞ্চলিক কমিটির আহ্বায়ক হামিদুর রহমানসহ অন্যান্য শাখা নেতাকর্মীরা।

এ সময় জেলার সভাপতি ইলিয়াস জামান বলেন, শিক্ষার যে অধিকার আদায়ের জন্য ওয়াজিউল্লাহরা প্রাণ দিলো সেই অধিকার স্বাধীন বাংলাদেশে খুন হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠাগুলোকে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তর করা হয়েছে। শিক্ষার উপর ভ্যাট আরোপ করে, বিশ্ববিদ্যালয়ে আসন ও শিক্ষক সংখ্যা না বাড়িয়ে সেই স্বৈরাচার আইয়ুব খানের পথে হাঁটছে। শিক্ষাঙ্গনে দলীয় ছাত্র সংগঠন দিয়ে সন্ত্রাস ও ভয়ভীতি বজায় রেখেছে যাতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাদের অধিকার আদায়ে সংগঠিত হতে না পারে। করোনাকালীন সময়ে দীর্ঘ ১৭ মাস স্কুল-কলেজ বন্ধ রেখে সারা বিশ্বে নজির স্থাপন করেছে। পর্যাপ্ত শিক্ষা উপকরণ না দিয়েই ছাত্রদের ঠেলে দেয়া হয়েছে অনলাইন শিক্ষাকার্যক্রমে যার কোন সুফল শিক্ষার্থীরা পায় নি বরং ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, ১৯৬২ সালে স্বৈরশাসক আইয়ুব খান সামরিক এস এম শরিফ কর্তৃক শিক্ষা কমিশন গঠন করে ও শিক্ষাকে সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে নেয়ার জন্য বিভিন্ন শিক্ষা বিরোধী নীতি গ্রহণ করে। তার মধ্যে অত্যতম হচ্ছে, অবৈতনিক শিক্ষা বন্ধ করা, শিক্ষাখাতে ভর্তুকি বন্ধ করা, ডিগ্রী কোর্সকে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য তিন বছরে উন্নতকরণ, ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধকরণ।

এমন শিক্ষা বিরোধী নীতির বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছিলো ছাত্র-শ্রমিক জনতা। আইয়ুব খানের ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মিছিল করে। পুলিশের গুলিতে নিহত হয় ওয়াজিউল্লাহ, বাবুল, মোস্তফা ও শ্রমিক সুন্দর আলী। সারা বাংলায় আগুনের মতো আন্দোলন ছড়িয়ে পরে ও আইয়ুব খান শেষ পর্যন্ত এই শরীফ শিক্ষা কমিশনের শিক্ষা নীতি স্থগিত ঘোষণা করে।

0