সরকারের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার কোকো: সেন্টু

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে ও বিএনপি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ভাই, বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠন মরহুম আরাফাত রহমান কোকো,র ৮ম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) বিকালে পুরাতন জিমখানার কাদেরিয়া তৈয়্যবিয়া তাহেরিয়া মাদরাসায় বাদ আছর ওই দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও বন্দর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকুল।

বিকালে মহানগর বিএনপি’র বিদ্রোহী দলের নেতৃবৃন্দ সমবেত হয়ে আছরের নামাজ জামাতের সাথে কাদেরিয়া তৈয়্যবিয়া তাহেরিয়া মাদরাসায় আদায় করেন। পরে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে, আরাফাত রহমান কোকো,র ৮ম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়। এ সময় সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়। এছাড়া সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি’র চেয়ারপার্সর বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া করা হয়। পরে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে তোবারক বিতরণ করে।

মহানগর বিএনপি সাবেক সহ-সভাপতি এড. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে ও মহানগর বিএনপি সাবেক যুগ্ম সম্পাদক এড. আওলাদ হোসেনের সঞ্চালনায় এ সময় প্রধান বক্ত হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপি সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবদুস সবুর খান সেন্টু, বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন, মহানগর বিএনপি সাবেক সহ-সভাপতি ফকরুল ইসলাম মজনু, মো. মনিরুজ্জামান মনির, মহানগর বিএনপি সাবেক সহ-সভাপতি নুরুউদ্দিন আহম্মেদ, যুগ্ম সম্পাদক মো. ইসমাইল, পরিবেশ বিয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম মিঠু, যুব বিষয়ক সম্পাদক মনোয়ার হোসেন শোকন, মহানগর বিএনপি নেতা নেছার উদ্দিন, আল মাহমুদ, এড. শহীদ সারোয়ার, নারায়ণগঞ্জ শহর যুগ্ম সম্পাদক এড. আব্দুল হামিদ ভাষাণী, যুগ্ম সম্পাদক দিপু চৌধুরী, বন্দর থানা বিএনপি সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ সভাপতি ফারুক চৌধুরী, সহ সভাপতি মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জিয়া উদ্দিন জিয়া, যুবদল নেতা জুলহাস, সেলিম, ছাত্রদল নেতা রশিদুর রহমান রুশোসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

মহানগর বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও বন্দর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকুল বলেন, আরাফাত রহমান হলেন বাংলাদেশের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র। তিনি ছিলেন একজন সফল ব্যবসায়ী ও ক্রীড়াবিদ। আজকে মৃত্যু বার্ষিকীতে তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করি। এছাড়া আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জন্য দোয়া কামনা করি ও তারেক রহমানের জন্য দোয়া করি।

মহানগর বিএনপি সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবদুস সবুর খান সেন্টু বলেন, আজকে আমরা যার জন্য দোয়া করতে এসেছি তিনি হলো শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ছেলে ও বিশিষ্ঠ ক্রীড়া সংগঠক আরাফাত রহমান কোকো। আজকের এই দিনে কোকো আমাদের মাঝে থেকে চলে গিয়েছে। তাকে যাতে আল্লাহ জান্নাতবাসী করে তার জন্য আমরা দোয়া করি। তাই আজ আমাদের স্নেহের সন্তানদের মাঝে উপস্থিত হয়ে দোয়া করছি। আপনাদের কাছে আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার দীর্ঘায়ু কামনার জন্য দোয়া প্রর্থনা করি। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের জন্য দোয়া চাই সকলের কাছে।

তিনি আরও বলেন, আরাফাত রহমান কোকো এই সরকারের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। আরাফাত রহমান কোকো রাজনীতিবিদ ছিলেন না, কিন্তু আমাদের সবার সাথে ভালো সম্পর্ক ছিল। ১/১১ এর সময় খালেদা জিয়াকে মাইনাস করার উদ্দেশ্যে, বিরাজনীতিকরণের উদ্দেশ্যে ১/১১ এর সরকার তারেক রহমান ও আরাফাত রহমানকে কী পরিমাণ নির্যাতন করেছে এসব নির্যাতনের কারণে অসুস্থ হয়ে চিকিৎসার জন্য মালয়েশিয়া গিয়ে আর ফিরতে পারেননি। এটা আমাদের জন্য দুর্ভাগ্যের।