সাংস্কৃতিক সংগঠক বুলবুল চৌধুরীর পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী বুধবার

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাংস্কৃতিক সংগঠক অধ্যাপক বুলবুল চৌধুরীর আজ পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০১৮ সালের ২৫ জানুয়ারি তার আকস্মিক মৃত্যুতে নারায়ণগঞ্জের শিক্ষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি জগতে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। অধ্যাপক বুলবুল চৌধুরী ১৯৪৬ সালের ৩ নভেম্বর তৎকালীন নারায়ণগঞ্জ মহকুমার অন্তর্ভুক্ত মনোহরদী এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৬৬ সাল থেকে নারায়ণগঞ্জে অবস্থান করেন। এসএসসি পরীক্ষা মনোহরদীতে উত্তীর্ণ হলেও তিনি তোলারাম কলেজ থেকে বি,এ পাস করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম,এ পাস করেন। তিনি ১৯৭২ সালে তোলারাম কলেজে বাংলা সাহিত্যের অধ্যাপক হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে অবসর গ্রহনের পূর্বে তিনি তোলারাম কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। অধ্যাপনার পাশাপাশি তিনি সাহিত্য চর্চা করে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেন। অধ্যাপক বুলবুল চৌধুরী স্বাধীনতা পূর্বকালে সাহিত্য বিতানের মাধ্যমে নিয়মিত কবিতা, গল্প ও প্রবন্ধ লিখতেন। এরপর তিনি শাপলা, পলাশ, সুধীজন পাঠাগার ও সূর্যাবর্ত সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িয়ে পড়েন। ১৯৭৭সালে নারায়ণগঞ্জ মহকুমা শিল্পকলা একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে পরবর্তীতে জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তাঁর কাব্যগ্রন্থ ‘উত্তরীয় উঠছে হাওয়া’ প্রকাশ করে কবি হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। বাংলা সাহিত্যে সর্ববৃহৎ এ কবিতাটি ১৬০০ লাইন লিখেছেন কবি বুলবুল চৌধুরী। এই ১টি কবিতা নিয়েই তাঁর এই কবিতা বইটি প্রকাশিত হয়। ২মেয়ে এবং ১ পুত্র সন্তানের জনক অধ্যাপক বুলবুল চৌধুরীর মৃত্যুর পর নারায়ণগঞ্জে সাহিত্য সংস্কৃতি চর্চার ক্ষেত্রে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। আজ তাঁর মৃত্যু বার্ষিকীতে পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।