সাকিব, তামিম, মুশফিকরা স্কুল টিম গুলো থেকে তৈরী হোক: বিসিবি’র পরিচালক টিটু

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও বিসিবি’র পরিচালক তানভীর আহমেদ টিটু বলেছেন, স্কুল ক্রিকেট সারা বাংলাদেশে চালু ছিলো। করোনার কারণে সেটি বন্ধ হয়ে যায়। সারা বাংলাদেশ থেকে আজ এই প্রতিযোগীতায় ৫৮৩টা স্কুল অংশ গ্রহন করেছেন। আমাদের কমিটি এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সারা বাংলাদেশে যে স্কুল গুলো প্রতিযোগীতায় অংশ নেয়। তার মধ্যে কয়েকটা উল্লেখ যোগ্য স্কুল, যারা অন্তত নামের জন্য অংশগ্রহন করে। তারা কখনো তেমন ভাবে খেলে নাই। হঠাৎ করে মাঠে এসে তারা ইনজুরি হয়ে যায়। আমরা এবার সিদ্ধান্ত নিয়ে স্কুলের সংখ্যা কমিয়ে নিয়েছি, ও যারা মোটামুটি ভালো খেলোয়াড় বা যাদের খেলা অনেকটা কোয়ালিপি সম্পন্ন সেই দিকে লক্ষ্য দিয়েছি। এই খেলাটা আগেও ছিলো, এখনো আছে এবং আগামীতেও থাকবে।

রবিবার (২৪ এপ্রিল) বিকালে সামসুজ্জোহা ক্রীড়া কমপ্লেক্সে জাতীয় স্কুল ক্রিকেট চ্যাম্পিয়ণশীপ ২০২১-২২ এর নারায়ণগঞ্জ জেলার ফাইনাল খেলায় বিজয়ীদের পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিসিবি’র পরিচালক বলেন, স্কুল কমিটি যারা এখানে অংশ গ্রহন করেছেন আমি তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই। খেলাধুলা বাচ্চাদের বিকাশের একটা বড় অংশ। স্কুল গুলো যে খেলার আয়োজন করেছেন, আমি বলবো আপনারা এটা চলমান রাখবেন। যদি জেলা ক্রীড়া সংস্থার কোন প্রয়োজন পরে আমরা আপনাদের পাশে আছি, থাকবো। জেলার পাশাপাশা ক্রিকেট বোর্ডও আপনাদের সহযোগীতা করবে। আমরা চাই ভবিষ্যৎ সাকিব, তামিম, মুশফিক যাতে স্কুল টিম গুলো থেকে তৈরী হোক। তারা আবারও আমাদের নারায়ণগঞ্জকে আলোকিত করে। যারা চ্যাম্পিয়ণ হয়েছে তাদেরকে অভিনন্দন, আর যারা রানার্স আপ হয়েছেন তাদের আগামী বছরের জন্য স্বাগত জানাই।

এ সময় পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ফারুক বিন ইউসুফ পাপ্পুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক খোরশেদ আলম নাসির, কার্যকরী সদস্য মাকসুদ উল আলম, ডা.রাকিবুল ইসলাম শ্যামল, মো. জাহাঙ্গীর আলম, জাকির হোসেন শাহিন, মো. আসলাম, মাহবুবুল হক উজ্জল, মাহবুব হোসেন বিজন, ডিষ্ট্রিক কোচ জিয়াউল হক জিয়া প্রমুখ।