সাবধান, না.গঞ্জবাসী! . . কান ধরে উঠবস করতে যেন না হয়

0

লাইভ নারায়ানগঞ্জ: বর্তমান সময়ে পূর্বের সব নিয়মকেই হার মানাচ্ছে করোনা ভাইরাস। জন্মও দিচ্ছে নতুন নতুন অনেক নিয়মকে। পূর্বে সরকারীভাবে চালানো হতো মাদকবিরোধী অভিযান। সকল প্রকার অসামাজিক আর খারাপ কাজ থেকে জনগণকে দূরে রাখতে নিয়েছিল নানা ব্যবস্থা। কিশোরদের ক্ষেত্রে ছিল খেলাধুলা আর বন্ধুদের সাথে সময়কাটানোর প্রতি তাগিদ দেয়া। এবার সরকারের পুলিশসহ তিনবাহিনী নেমেছে তাদের বিরুদ্ধেই যারা বন্ধু মহলকে নিয়ে দিবে আড্ডা। হতে পারে চায়ের দোকান, কিংবা কোন সভাকক্ষ। সেই আড্ডাই হতে পারে শাস্তির কারণ। সেই শাস্তি কোন অর্থনৈতিক শাস্তি নয়। মানসিক শাস্তি। যা একজন মানুষের সম্মানে দারুনভাবে প্রভাব ফেলবে। কান ধরে উঠা-বসাসহ পুস-আপও দিতে হতে পারে রাস্তার মধ্যে। বিষয়গুলো অবাক করার মতো বা গল্পের মতো মনে হলেও সত্য। এরকমই ঘটনা ইতিমধ্যেই ঘটেছে বাংলাদেশে। আর এ সব কিছু করোনা সর্তকতায়। বাংলাদেশ ভালো রাখায়।

সোমবার ( ২৪ মার্চ) সকালে করোনার এই ভয়াবহ সময় বাসায় থাকার পরামর্শ না মানে মানিকগঞ্জের বাস স্টান্ডে একটি চায়ের দোকানে আড্ডা দিচ্ছিলো ১০ জন যুবক। তাদের ১০০ বার কান দরে উঠবোস করানো হয়। একই কারণে অন্য জায়গায় ৫০০ বার বুক ডাউন শাস্তি দেয় সেনা সদস্যরা।

সেনা সদস্যদের এই শাস্তিদানের বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে সোস্যাল মিডিয়ার অন্যতম অংশ ফেসবুকে। সাধারণ জনগণসহ সকলেই সাধুবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে।

নারায়ণগঞ্জও এর বাহিরে নয়। বুধবার থেকে নারায়ণগঞ্জের প্রতিটি উপজেলায় সেনাবাহিনীর একটি করে টিম পাঠানো হয়েছে। শহরে টহলরত অবস্থায় রয়েছে সেনাবাহিনী। ভুলক্রমে হোক বা অজ্ঞতাবসত হোক, ধরা খেলেই সম্মান হানির প্রতি পরিস্থিতি হতে পারে। করোনা ভাইরাস জনগণের সচেতনতায় ইনশা-আল্লাহ চলে যাবে, কিন্তু সম্মানের হানি হলে তা কোনভাবেই পোষানো যাবে না। আর যদি কেউ ছবি তুলে মানিকগঞ্জের মতো ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে দেয়, তাহলে তো কথাই নেই। তাই, পূর্বেই সচেতন হয়ে বাড়িতে অবস্থান নিন। ভালো রাখুন পরিবার, ভালো থাকুক নারায়ণগঞ্জ।

0