সিদ্ধিরগঞ্জে শালি-দুলাভাইয়ের মাদক ব্যবসা

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বাসার চিলাকোটায় চলছিল মাদক ব্যবসায়ীদের মিটিং। এ সময়ই হানা দেয় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গ্রেপ্তার হয় নারীসহ ১ সহযোগী। তবে, পালিয়ে যায় মূল মাদক ব্যবসায়ী আরশাদ মিয়া ।
বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) সকাল সিদ্ধিরগঞ্জ থানার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের একটি মামলায় গ্রেপ্তারকৃত ২ জনকে আদালতে উঠিয়ে এ তথ্য জানান পুলিশ। এসময় ৭ দিনের রিমান্ড চাইলে ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেয় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিদা খাতুনের আদালত।

রিমান্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন-বন্দরে কুশিয়ারা এলাকার মো. ফিরোজ মিয়ার ছেলে মো. সেলিম (৫০), সিদ্ধির উত্তর জয়নগর এলাকার মৃত. সাদেক এর মেয়ে মোছা. মমতাজ (৪৫)।

প্রাথমিক তদন্তে আরো জানা যায়, পলাতক আসামি আরশাদ মিয়া, আসামি মোছা. মমতাজ এর সম্পর্কে আপন শ্যালীকা ও দুলাভাই।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায় যে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে ৪ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৩ টার সময় সিদ্ধিরগঞ্জ মিজমিজ এলাকার আরশাদ মিয়ার একতলা বিল্ডিং এর ছাদের উপর চিলাকোটা রুমের ভিতর থেকে আসামিদের গ্রেপ্তার করেন গোয়েন্দা ডিবি পুলিশ। সে সময় আসামিদের নিকট থেকে ৫’শ ৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেন। সে সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আরশাদ মিয়া সহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজন আসামি পালিয়ে যায়।

প্রাথমিক তদন্তে জানা যায়, আসামিরা পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক ব্যবসায়ী দলের সক্রিয় সদস্য। তারা দীর্ঘদিন যাবৎ উক্ত আসামিরা ও পলাতাক আসামিরা একে অপরের সহাযোগীতায় মাদক ব্যবসা করে এলাকার যুব সমাজকে ধ্বংসের দিকে ধাবিত করছে। তাই মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ও উদ্ধারকৃত ইয়াবার উৎস, ইয়াবা সংগ্রহের ঠিকানা, মাদক ব্যবসায়ী গডফাদারদের সনাক্ত ও গ্রেপ্তার এবং তাদের নিকট সংরক্ষিত থাকা আরও ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারের লক্ষে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আসামিদের ১ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে।

এবিষয়ে কোর্ট পুলিশ পরির্দশক মো. আসাদুজ্জামন বলেন, আসামিরা মাদক মামলার সাথে জড়িত। তাই সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে আসামিদের বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে ১ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

0