সেই ‘চামড়া’ এবার জলাশয়ে: রয়েছে দুর্গন্ধ, আশঙ্কা ক্ষয়ক্ষতির

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ:
লিংক রোডের পাশে উন্মুক্ত পড়ে ছিলো শত শত পশুর চামড়া। এ নিয়ে গত ২ দিন বেশ আলোচনা-সমালোচনা হয় স্যোসাল মিডিয়ায়। এরপর অনেকটা ঘোষণা দিয়েই ব্যবস্থা নেন উপজেলা প্রশাসন। সড়কের পাশ থেকে অপসারণ করা হয়েছে সেই চামড়া গুলো। তবে, তা মাটিতে না পুতেঁ ফেলা হয়েছে সড়কের পাশের জলাশয়ে। আর এতে দুর্গন্ধ ঠিকই ছড়াচ্ছে চারদিকে। ভোগান্তির শঙ্কা রয়েই গেছে যাত্রীদের। অসুস্থ্য হওয়ার ভয় কাজ করছে আশপাশের মানুষের মাঝে। সেই সাথে ওই এলাকার মাছ চাষীদের ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কাও কাজ করছে।

ন্যায মূল্য না পাওয়ায় ঈদের ১দিন পর (১৪ আগস্ট) ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সীমানায় শত শত পশুর চামড়া ফেলে যায় কতিপয় লোক। বিষয়টি ওই দিনই স্থানীয় গণমাধ্যম ও স্যোসাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পরার পর সদর উপজেলার ইউএনও ঘোষণা দিয়ে চামড়া অপসারণের ব্যবস্থার আশ্বাসদেন। ১৫ আগস্ট সে ঘোষণা অনুযায়ী কাজ করার কথা ছিলো।

বিকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অপসরণ করা হয়েছে ঠিকই। তবে, এখন চামড়া গুলোর স্থান হয়েছে সেই সড়কেরই ঢালে উন্মুক্ত ভাবে পড়ে আছে। কিছু পড়ে আছে জলাশয়ে। কয়েক শত চামড়া ফেলা হয়েছে পাশের মাছের খামারেও। চামড়া গুলো পচা শুরু হওয়ায় বায়ূ ও পানির পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার শঙ্কা রয়েছে মাছের চাষাবাদেও।

মাছের খামারটির মালিকদের একজন জামান হোসেন বলেন, এ চামড়া ফেলার ফলে আমাদের মাছের ক্ষতি হবে। তবে, এ নিয়ে ইউএনও’র প্রতি কোন অভিযোগ নেই। তিনি যথেষ্ট ভালো মানুষ। আমাদের অভিযোগ, যারা চামড়া গুলো ফেলে গেছে।

এদিকে, নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, পশুর চামড়া গুলো উন্মেক্ত ফেলায় পরিবেশে নস্ট হবে। দূর্গন্ধ চারপাশে ছড়িয়ে পরবে। পাশাপাশি এ সকল পচা বর্জ্যে মশা মাছি বসলে, সেই মশা মাছি রোগ জীবানু ছড়িয়ে দিতে পারে। এতে ডায়রিয়া জাতিয় রোগ বেশি হতে পারে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাহিদা বারিক এর মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেনি।

0