সোনারগাঁ উপজেলায় মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে মামলা

0

সোনারগাঁ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: সোনারগাঁ উপজেলা মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে মামলা করেছেন সোনারগাঁ উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতির সভাপতি শফিকুল ইসলাম। বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের বরাদ্দকৃত সম্পত্তিতে এই মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হচ্ছে বলে দাবি করে তিনি গত ৭ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক, সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইসলামী ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ এর উপ-পরিচালককে বিবাদী করে এ মামলাটি দায়ের করেন। এদিকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নালিশা সম্পত্তিটি উপজেলা পরিষদের আওতাধীন বলে দাবি করা হয়েছে।
জানা যায়, সোনারগাঁ উপজেলার কেন্দ্রীয় ঈদগাহের পাশে ইসলামী ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে উপজেলা মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স। এ অত্যাধুনিক মসজিদটিতে একসাথে বিপুল সংখ্যক মুসল্লী নামাজ আদায় করতে পারবেন। এছাড়া এরমধ্যে নারীদের জন্য পৃথক পৃথক অজুখানা ও নামাজের ব্যবস্থা থাকবে। ইমামদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, লাইব্রেরী, গবেষণা কেন্দ্র, ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, মেহমানদের আবাসন, বিদেশি পর্যটকদের পরিদর্শন ও মৃতদেহ গোসলের ব্যবস্থাসহ আরো অন্যান্য সুবিধাদি থাকবে। উপজেলা পরিষদের জন্য অধিগ্রহনকৃত সম্পত্তিতে মসজিদটি নির্মাণ করা হচ্ছে বলে উপজেলা প্রশাসন ও এলাকাবাসীর অভিমত।
তবে সোনারগাঁ উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিটেড এর সভাপতি শফিকুল ইসলামের দাবি ওই সম্পত্তি তাদের সমিতির নামে বরাদ্দকৃত। তার দাবি, বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের বরাদ্দ সূত্রে উক্ত সম্পত্তির মালিক উপজেলা পল্লী উন্নয়ন দপ্তর, সোনারগাঁ এর অধীন সোনারগাঁ উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিটেড। এ কারনে তিনি উক্ত সম্পত্তিতে উপজেলা মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারী জজ, সোনারগাঁ, আদালতে একটি মামলা করেছেন।
সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অঞ্জন কুমার সরকার মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্সের জন্য অধিগ্রহণ করা সম্পত্তিতে মসজিদটি নির্মাণ করা হচ্ছে। আমি এ উপজেলায় যোগদান করার আগেই তা চূড়ান্ত হয়েছে। আদালতে আমরা এ সংক্রান্ত যাবতীয় কাগজপত্র পেশ করবো।

0