স্বতন্ত্র থেকে মনোনয়ন কিনে এটিএম কামাল যা বল‌লেন. . ,

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (এনসিসি) নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন কিনেছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল। রবিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা নির্বচান অফিস থেকে ওই মনোনয়ন পত্র কেনেন তিনি।

নারায়ণগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিসার প্রতিভা বিশ্বাসের কাছ থেকে মনোনয়ন ফরম নেন এটিএম কামাল ।

মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করার পর সাংবাদিকদের তিনি বলেন, আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আমি একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছি। যেহেতু আমাদের দল নির্বাচনে না যাওয়ার একটি ঘোষণা দিয়েছে। কিন্তু আমাদের মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন ‘যদি কেউ স্বতন্ত্র থেকে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করতে চায়, তাহলে দলের কোন আপত্তি থাকবে না’। তাই আমি আমার দলের সিনিয়র নেতা নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি’র আহবায়ক ও বিএনপি’র চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা তৈমুর আলম খন্দকার, মহানগর বিএনপি’র সভাপতি এড. আবুল কালাম সাহেবের সাথে কথা বলেছি এবং সাবেক নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সাংসদ গিয়াসউদ্দিনের সাথে কথা বলবো। আমি তাদের সহযোগীতা চাই। তারা যদি আমাকে সমর্থন করে তাহলে অবশ্যই আমি নির্বাচন করবো।

তিনি আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জে বিএনপি’র একটা বিশাল ভোটব্যাংক বা নারায়ণগঞ্জকে বিএনপি’র দূর্গো হিসেবে চিনে সকলে। বিগত সময়ে নারায়ণগঞ্জের নাগরিক বা ভোটাররা ভোট দিতে পারে নাই, আমাদের সন্তানদের বের করে দেয়া হইছে। যদি উৎসব মূখর পরিবেশে নির্বাচন হয়, ভোটাররা যদি তাদের ভোট দিতে পারে সঠিক ভাবে। তাহলে আল্লাহ রাব্বুর আলামিন চাইলে আমরা বিপুল ভোটে জয়লাভ করবো।

নির্বাচিন কমিশনের কাছে আপনার কোন দাবি আছে কিনা? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে এটিএম কামাল বলেন, অবশ্যই নির্বাচিন কমিশন ও সরকারের কাছে আমার দাবি আছে, বিগত সময়ে রাতের আধারে ভোট হয়েছে, আমাদের সন্তাররা ভোট কেন্দ্রে গিয়ে মার খেয়েছে, অপমান করেছে, ভোট দিতে পারে নাই। যাতে তারা ভোট দিতে পারে এবং একটা উৎসব মূখর পরিবেশে ভোট দিতে পারে, নির্বাচন কমিশনের কাছে আমার এই দাবি থাকবে। আর যদি সেটা না হয়, তাহলে আরেকবার প্রমান হবে বাংলাদেশের মানুষের ভোটাধিকার নাই।

এবার সিটি নির্বাচন ইভিএম’র (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) মাধ্যমে হবে এ বিষয়ে আপনার দ্বিমত আছে? এমন প্রশ্নত্তরে এটিএম কামাল বলেন, ইভিএম সম্পর্কে মানুষ এখনো একটা কষ্টবোধক চিহ্ন রয়েছে। আমরা সবার সাথে কথা বলবো যদি ইভিএম যদি সমস্যা থাকে তাহলে আমরা নির্বাচন কমিশনের কাছে এটা প্রত্যাহারের দাবী জানাবো।

উল্লেখ্য, ৩০ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। তফসিল অনুসারে মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ তারিখ ২০২১ সালের ১৫ ডিসেম্বর (বুধবার)। ২০ ডিসেম্বর (সোমবার) মনোনয়ন বাছাই এবং ২৭ ডিসেম্বর (সোমবার) মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষদিন নির্ধারণ করা হয়েছে। আর ভোট গ্রহণ হবে ২০২২ সালের ১৬ জানুয়ারী (রোববার)।