হাতে হাত রেখে না.গঞ্জের পূজা মন্ডপে হিন্দু ও মুসল্লীরা

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উদহারণ সৃষ্টি করে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করলেন নারায়ণগঞ্জের ধর্ম প্রাণ মুসল্লীরা। পূজা মন্ডপে গিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতি সহযোগিতর হাত বাড়িয়ে দিয়ে যে কোন পরিস্থিতিতে পাশে থাকার প্রতিশ্রতি দিয়েছেন বেশ কয়েকটি মসজিদের মুসল্লীরা। ওই সময় পূজা মন্ডপে হিন্দু মুসলিম একে অপরের হাতে হাত উচুতে তুলে ধরে একাত্ম প্রকাশ করেন।

বৃহস্পতিবার রাতে ফতুল্লার ধর্মগঞ্জ শীষ মহল রাধানগর গোবিন্দ মন্দিরে এ বিরল দৃশ্যের অবতারণা হয়। ওই সময় আয়োজক কমিটি প্রধান দিলীপ কুমার মন্ডল মুসল্লীদের পূজা মন্ডপে অভ্যরথনা জানান।

মন্ডপে মানবিক নারায়ণগঞ্জ সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক রোমান চৌধুরী সুমন সকলের উদ্দেশ্য বলেন, কোন ধর্মকে অসম্মান করা যাবে না। আমাদের অনেক হিন্দু বন্ধু আছে যাকে আমি নামাজের সময় বলে দেখেছি আমি নামাজ পড়ে আসি। সেই সময় আমাকে হিন্দু বন্ধু আমার জন্য মসজিদের বাইরে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে দেখিছি। যতক্ষণ না আমার নামাজ শেষ হয়েছে। এই দেশ হিনদু বৌদ্ধ সকল ধর্মের লোকের দেশ। হিন্দু ভাইয়েরা যদি আমাদের ইবাদতের সময় মসজিদের বাইরে দাড়িয়ে অপেক্ষা করতে পারে তাহলে আমরা কেন আপনাদের হিন্দু ভাইদের ভাষায় পূজা আমাদের ভাষায় ইবাদতে আপনাদের পাশে দাঁড়াবো না? আমরাও চাই আমরা যেমন আমাদের ধর্মকে নীরবে নিভৃতে পালন করতে পারি। আপনারা যেন আপনাদের ইবাদতকে সন্তুষ্টি নিয়ে পালন করতে পারেন।
এদিকে এ ঘটনায় দেশ চলমান পরিস্থিতিতে মসজিদের মুসল্লীরা পাশে দাঁড়ানোর ঘটনায় ওই এলাকায় হিন্দু মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে এক আনন্দঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

মন্ডপে মুসল্লীদের আগমন শুভেচ্ছা জানিয়ে আয়োজক কমিটির প্রধান বিষয়ে পূজা দিলিপ কুমার মন্ডল সকলের উদ্দেশ্য বলেন, এক ধর্ম আরেক ধর্মের ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালনে পাশে দাঁড়াবে এভাবে সবাই যদি হিন্দু মসুলমান যার যার ধর্মীয় উৎসব পালনে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়। আমাদের মধ্যে ধর্মীয় সম্প্রীতি সৃষ্টি হবে। একে অপরের ধর্মের প্রতি সম্মান বৃদ্ধি পাবে। ওনার পূজায় এসে ধর্মীয় সৌহার্দ্য সৃষ্টি করেছেন এবং আমাদের অভয় দিয়ে আনন্দিত করেছেন। তাদের এই বিরল আগমন সবার জন্য উদহারন হয়ে থাকবে।

0