হামলা মামলা দিয়ে সাংবাদিকের কলম বন্ধ করা যাবে না: শাহ আলম

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ও নারায়ণগঞ্জের চার সাংবাদিকের উপর দায়েরকৃত সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে, প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন করেছে নারায়ণগঞ্জের সর্বস্তরের সাংবাদিক সমাজ। মঙ্গলবার (২ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১ টায় চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে এই প্রতিবাস সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে সভা শেষে শহীদ মিনারের সামনে বঙ্গবন্ধু সড়কে মানববন্ধন করা হয়।

প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, নারায়ণগঞ্জে সাংবাদিকদের দাবিয়ে রাখার চেষ্টা চলছে, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর ভাই, আলী রেজা রিপনের দায়ের করা হয়রানীমূলক তৎকালীন আইসিটি অ্যাক্ট ৫৭ ধারা এবং বর্তমানে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা করা হয়েছে, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান বাদল, যুগান্তর ও ডিবিসি নিউজের সাংবাদিক রাজু আহম্মেদ, আনন্দ টিভির নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ বার্তা ২৪ ডট কম এর প্রকাশক ও সম্পাদক সৈয়দ সিফাত আল রহমান লিংকন, সংবাদ মাধ্যম দ্যা দেশ বাংলা ডট কম, বিডি নিউজ ওয়ান্ড, পি আর বি নিউজ ২৪ ডট কম এর নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ও ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান কচির বিরুদ্ধে, অনতিলম্বে এই মামলা প্রত্যাহার করে, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা বাতিল করতে হবে।

নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলম বলেন, সাংবাদিক পেশাটা হচ্ছে ঝুকিপূর্ণ পেশা। জীবন ঝুকি নিয়েই এই পেশায় থাকতে হয়। কিন্তু বর্তমান সমাজে সবচেয়ে অবহেলিত, নির্জাতিত হচ্ছে এই সাংবাদিরা। ঢাকায় অনেক সাংবাদিকদের বেতন আটকে দেয়া হয়েছে, তাদের বেতন দেয়া হচ্ছে না। পারিবারিক ভাবে তারা অসচ্ছল হয়ে পড়ছে। বর্তমানে সংবাদ মাধ্যম গুলো বুর্জোয়াদের হাতে চলে যাচ্ছে। অধিকাংশ হাউজ গুলো কর্পোরেট হয়ে গেছে তাদের হাতেই চলে গেছে। তারা এতো শক্তিধর যে, তাদের বিরুদ্ধে কথা বলতে গেলে সমস্যা হয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রকৃতপক্ষে সাংবাদিক বান্ধব একজন মানুষ, যখন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া দিয়েছিলো কমিটির কাছে সেখানে কয়েকজন জাতীয় সাংবাদিক ছিলো, তাদের উচিৎ ছিলো এই সমস্যা গুলো তুলে ধরা। কিন্তু তারা খসড়া রিপোর্ট দেখে কোনো প্রতিবাদ করেনি। সারা বাংলাদেশে উত্তাল হয়েছিলো সাগর-রুনি হত্যা নিয়ে কিন্তু আদো তাদের এই হত্যাকান্ডের বিচার হয়নি। আসলে এই সব কথা বলতে গেলে নিজেদের ঘাড়েই পরে। কিন্তু আমি বলতে চাই হামলা মামলা দিয়ে সাংবাদিকের কলম বন্ধ করা যাবে না। যারা প্রকৃত সাংবাদিক তারা কোনো কিছুতে ভয় করে না। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে যে সকল সাংবাদিকদের হয়রানি করা হচ্ছে তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তার সাথে এই আইন বাতিলের দাবি জানাচ্ছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে।

প্রতিবাদ সভায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলমের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোটার্স এসোসিয়েশন (ক্র্যাব) এর সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফ, প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান বাদল, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য মাহফুজুর রহমান জাহিদ, সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ সিটি প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সিফাত আল রহমান লিংকন, ফটো সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান কচি, দৈনিক দেশের জেলা প্রতিনিধি মাসুদুর রহমান দিপু, কালের কন্ঠ এবং নিউজ টোয়েন্টি ফোর টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি দিলিপ কুমার মন্ডল, মানবজমিনের স্টাফ রিপোর্টার বিল্লাল হোসেন রবিন, বন্দর প্রেস ক্লাবের সভাপতি পিন্টু খান, সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন সিদ্দিকী, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রেস ক্লাব এর সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর ডালিম, সাংবাদিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুজ্জামান আরিফ, নারায়ণগঞ্জ রিপোটার্স ইউনিয়নের সভাপতি শহিদুজ্জামান রাসেল, দৈনিক যুগান্তরের স্বজন সমাবেশের সভাপতি জাহাঙ্গীর ডালিম, আড়াইহাজার প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাসুম বিল্লাহ, বাংলাদেশ প্রতিদিনের জেলা প্রতিনিধি নোমান চৌধুরী সুমন, নারায়ণগহ্জ সিটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল্লা মাহমুদ টিটু, লাইভ নারায়ণগঞ্জের রিপোর্টার গোলাম রাব্বি প্রমুখ।

0