হাসপাতাল চত্বরে উচ্চ শব্দে স্বাচিবের শোকসভা

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: হাসপাতাল চত্বরে মঞ্চ বানিয়ে চলছে শোক দিবসের আলোচনা সভায়। সেখানে মাইকে উচ্চ শব্দে রাখছে বক্তৃতা। বক্তাদের মধ্যে রয়েছেন স্থানীয় সাংসদও। আবার অনুষ্ঠান নিয়ে ব্যস্ত চিকিৎসক, সেবিকাসহ সব কর্মকর্তা-কর্মচারী। আর নিয়ে হাসপাতালে রোগীদের ত্রাহি অবস্থা।

নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর ৩‘শ শয্যা হাসপাতালের শনিবার দুপুর ৩টার দিকে চিত্র এটি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৪৪ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন করে নারায়ণগঞ্জ জেলা স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ)।

স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের নেদা ডা. চৌধুরী মো. ইকবাল বাহারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

এছাড়া অতিথি নারায়ণগঞ্জ ৩‘শ হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবু জাহের, জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ, কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ডা. এম ইকবাল আর্সলান, মহাসচিব ডা. এমএ আজিজ, জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিধান সাহা পোদ্দার, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. হাসান ফেরদৌস জুয়েল প্রমুখ৷

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অনুষ্ঠান উপলক্ষে হাসপাতালের মূল ভবনের সামনে মঞ্চ বানানো হয়। সেখানে বক্স বাজিয়ে এই অনুষ্ঠান হয়। বক্সের উচ্চ শব্দে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগী ও তাঁদের স্বজনেরা ভোগান্তিতে পড়ে। আবার সাংসদের অনুষ্ঠান বিধায় হাসপাতালের চিকিৎসক, সেবিকাসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেশির ভাগই ব্যস্ত ছিলেন অনুষ্ঠান নিয়ে। এ সময় চিকিৎসা সেবা থেকে অনেকেই বঞ্চিত হয়েছে বলে জানান রোগীদের স্বজনরা।

পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ১৯৯৭ সালে প্রণীত পরিবেশ সংরক্ষণ বিধিমালা অনুযায়ী, হাসপাতালের ১০০ মিটার ব্যাসার্ধ (চারপাশ) এলাকায় যানবাহনের হর্ন, লাউড স্পিকার, সংকেতবার্তা বাজানোও সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

সেখানে হাসপাতাল চত্বরে এ ধরণের লাউড স্পিকারে আলোচনা সভা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন, এটা কোন জনসভা নয়, বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ১৫ আগস্টের শোকসভা। তাই অন্য কোন ভাবে এ সভাকে নেওয়ার সুযোগ নেই। এছাড়া সকলেই ধীরে সুস্থে বক্তব্য রেখেছে। শোক সভার চাইতেও কয়েক গুন বেশি শব্দ বাহিরে প্রতিনিয়তই হচ্ছে। তাই শোকসভার সাউন্ড পলিউশন হয়েছে বলেও আমি মনে করি না।

ভিডিওটি দেখতে নিজের লিঙ্ককে ক্লিক করুন

0