১১ দফা দাবিতে না.গঞ্জে শ্রমিকদের বিক্ষোভ সমাবেশ

0

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: সিদ্ধিরগঞ্জে অবস্থিত প্যাপিলন নীট এাপারেলস (প্রাঃ) লিঃ এর শ্রমিকরা বন্ধ কারখানা খুলে দাও, ২ মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবিতে নারায়ণগঞ্জ শহরে মিছিল ও বিকেএমইএ’র সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। সমাবেশে প্যাপিলন শ্রমিক আনোয়ারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক এস.এম. কাদির, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট গাবতলী পুলিশ লাইন আঞ্চলিক শাখার সাধারণ সম্পাদক হাসনাত কবীর, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা শাখার সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম সুজন, সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সোহাগ, বিসিক শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সাইদুর, প্যাপিলন গার্মেন্টস এর শ্রমিক লিপি, রানী, বেবী, কনক, আফসানা, রাজু ও সুপারভাইজার মোশারফ প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ২ মাস ধরে বেতন না পাওয়ায় কারখানার একজন শ্রমিকের স্বামী চিকিৎসার অভাবে মারা যান। বাড়ীওয়ালা বাসা ভাড়ার জন্য তাগিদ দিয়ে অকথ্য ভাষায় নির্যাতন করছে, বাড়ী ছাড়ার হুমকি দিচ্ছে। এলাকার মুদি দোকানী টাকা না পেয়ে শ্রমিকদের কোন সদাই দিচ্ছে না এ অবস্থায় শ্রমিকরা অনাহারে অর্ধাহারে দিনযাপন করছে। গতকাল প্যাপিলন গার্মেন্টস এর স্টাফরা ৩ মাসের বকেয়া বেতন চাহিলে মালিক বলে শ্রমিকরা কাজ করে নাই এই মর্মে তাদের কাছ থেকে স্বীকারোক্তি আদায়ের জন্য লিখিত অঙ্গীকারনামা দিতে হবে। নইলে তোমাদের বেতন দেয়া হবে না। গত ১লা এপ্রিল থেকে অদ্য পর্যন্ত নিয়মতান্ত্রিকভাবে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে। সেক্ষেত্রে শ্রম অধিদপ্তর, বিকেএমইএ, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা, পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে শ্রমিকদের দাবিনামা বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে। এরপরও সংকট সমাধান করার জন্য কেউ এগিয়ে আসেনি। শ্রমিকেরা গত ১৬/০১/২০১৯ইং তারিখে মালিক কর্তৃপক্ষকে ১০ দফা দাবিনামা দিয়েছিল। ২৩/০১/২০১৯ইং তারিখে শ্রম অধিদপ্তর, নারায়ণগঞ্জ শাখা বরাবর দাবিনামা পেশ করা হয়। এরপর মালিক কর্তৃপক্ষ দাবিনামা পূরণ না করে গত ২৯/০৩/২০১৯ইং তারিখে ৩০-৩১ মার্চ নোটিশ দিয়ে কারখানা গেটে ২দিন ছুটি ঘোষনার নোটিশ দেয়। শ্রমিকরা যথারীতি মেনে নেয়। পরবর্তীতে ০১লা এপ্রিল নিয়মতান্ত্রিকভাবে কাজে যোগদানের উদ্দেশ্যে কারখানায় যায়। কিন্তু মালিক কর্তৃপক্ষ একটি অবৈধ বে-আইনী নোটিশ বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এর ১৩(১) ধারা অনুযায়ী কারখানা গেটে তালা দিয়ে বন্ধ ঘোষনা করেন। তারপর থেকে শ্রমিকরা রাজপথে অবস্থান করছেন। সরকার বলেন বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। মাথাপিছু আয় বেড়ে দাড়িয়েছে ১৯০২ ডলারে। কিন্তু প্যাপিলনের শ্রমিকরা আজ ৯ দিন যাবৎ রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে আন্দোলন করছে। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে সংশ্লিষ্ট সকল কর্তৃপক্ষকে এই সংকট সমাধানের আহ্বান জানিয়েছে। নতুবা আন্দোলন নারায়ণগঞ্জসহ সারাদেশে ছড়িয়ে পড়বে, অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে শ্রমিকরা দায়ী থাকবে না।

১৮০
0