১২ ছাত্রীকে ধর্ষণ: দায় স্বীকার করে নিজের ‘মৃত্যুদন্ড’ চাইলেন ধর্ষক

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নিষিদ্ধ ভিডিও দেখিয়ে ৩য় থেকে ৫ম শ্রেণির ১২ মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির কথা স্বীকার করেছে শিক্ষক আল-আমিন। তার এ অপরাধে নিজের মৃত্যুদন্ড হওয়া উচিৎ বলেও মনে করছেন এ ভয়ঙ্কর ধর্ষক।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সকাল ১১ টায় সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার মাহমুদপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই মাদ্রাসার শিক্ষককে আটক করে র‌্যাব।

সে মামুদপুর এলাকার বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক। একই সঙ্গে সে ফতুল্লা এলাকায় একটি মসজিদের ইমাম হিসেবেও দায়িত্ব পালন করে আসছে।

এর আগে র‌্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলেপ উদ্দিন জানান, কিছুদিন পূর্বে সিরিয়াল রেপিস্ট আশরাফুল আরিফকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় টেলিভিশনে প্রচারিত একটি সংবাদের ভিডিও ক্লিপ তার ফেসবুক ওয়ালে আপলোড করেছিল। গত দুইদিন পূর্বে বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদরাসার তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী এবং তার মা ফেসবুকে দেখছিল। এ সময় হঠাৎআলেপ উদ্দিনের ওয়ালে থাকা ভিডিওটি দেখে ওই মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রী তার মাকে বলেছিল যে, মা আমাদের হুজুর কে কেন গ্রেফতার করে না র‌্যাব, আমাদের হুজুর আমাদের সাথে এরকম আচরণ করে। আমার ওই মাদ্রাসায় যেতে ভালো লাগেনা। আমি মাদ্রাসায় আর যাব না। পরে বিষয়টি ছাত্রীর মা র‌্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিনের সাথে শেয়ার করেন। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিন ঘটনাস্থলে এসে ওই মেয়ের জবানবন্দি নেন এবং মেয়েকে কৌশলে মাদ্রাসায় পাঠিয়ে শিক্ষককে আটক করেন।

0