৩‘শ শয্যা হাসপাতালে র‌্যাবের অভিযান: ৯ দালালের জেল

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নগরীর খানপুরে ৩‘শ শয্যা হাসপাতালে অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব-১১ এর বিশেষ আভিযানিক দল। অভিযানে বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ৯ দালালকে ৭ দিনের কারাদন্ড দেয় র‌্যাবের ভ্যাম্যমান আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকাল ৯টার দিকে র‌্যাব হাসপাতালে অভিযান শুরু করে। অভিযানে ২০ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। আটককৃতদের মধ্যে যাচাই বাছাই করে ৯ জনকে মুচলেকা দিয়ে এবং একজন অসুস্থ্য থাকায় ছেড়ে দেয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মেজবাহ উল সাবেরিন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মৌসুমি মান্নানের ভ্রাম্যমান আদালত ৯ জনকে কারাদন্ড প্রদান করেন।

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- দুলাল হোসেন (৪২), বাদল মিয়া (৫০), মাকসুদা বেগম (২২), মনিরুল ইসলাম, ফরিদ (৩০), খালেক (৩০), রিপন (৩৬), ইব্রাহিম (৩৫) ও আব্বাস।

অভিযান চলাকালীন সময় নারায়ণগঞ্জ ৩‘শ শয্যা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবু জাহের ও আবাসিক চিকিৎসক ডা. সামসুদ্দোহা সঞ্চয় উপস্থিত ছিলেন।

অভিযানের এক পর্যায়ে র‌্যাব-১১ এর সিনিয়র সহকারি পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কিছু দালাল হাসপাতালে রোগীদের হয়রানি করে আসছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই সাদা পোশাকে বিভিন্ন জনের উপর নজর রাখছিল র‌্যাব। সন্দেহভাজন ১৯ জনকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে ৯ জনকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে সাত দিনের কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। বাকিদের ভবিষ্যতে এমন কাজ করবেন না এই মর্মে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে, বেলা ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ একেএম সেলিম ওসমান হাসপাতালে আসেন। জানা যায়, খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালকে ৫০০ শয্যায় উন্নীত করণের লক্ষ্যে সরকারী অর্থায়নে নির্মাণাধীন বহুতল ভবনের নকশা পরিবর্তন বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের একটি সভায় যোগ দিতে হাসপাতালে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি। এ সময় অভিযান প্রসঙ্গে র‌্যাব কর্মকর্তাদের সাথে আলাপ করেন তিনি ও পরে হাসপাতালের রুটিন ওয়ার্ক পর্যবেক্ষণ শেষে হাসপাতাল ত্যাগ করেন।

0