৩০০ শয্যার অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা নিরসনের দাবি বাসদের

0

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: নারায়ণগঞ্জের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ নারায়ণগঞ্জ জেলা ফোরামের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) বেলা ১১ টায় সংগঠনের জেলা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

বাসদ জেলা সমন্বয়ক নিখিল দাসের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন বাসদ জেলা ফোরামের সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাস, বাসদ জেলা ফোরামের সদস্য, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, বাসদ জেলা ফোরামের সদস্য, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্টের নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ।

নিখিল দাস বলেন, সারা দেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও করোনা সংক্রমণের ব্যাপক অবনতি হয়েছে। এখানে প্রায় অর্ধ কোটি লোকের বাস। নারায়ণগঞ্জে করোনা সংক্রমণের এক বছর পার হলেও করোনা চিকিৎসার তেমন উন্নতি হয়নি। খানপুরে অবস্থিত করোনা হাসপাতালে করোনা টেস্টের সিরিয়ালের জন্য যে নম্বর দেওয়া হয়েছে, তাতে মেসেজ দিলেও উত্তর আসে না। ফোন দিলে সংযোগ পাওয়া যায় না। ফলে প্রতিদিন ৫০/৬০ জন রোগী অভিযোগ করলেও কোন সুরাহা হচ্ছে না। স্বাস্থ্য সেবার হট লাইন (১৬২৬৩) নম্বরে একাধিকবার ফোন দিয়েও সংযোগ পাওয়া যায় না। ইমারজেন্সি রোগীর করোনা টেস্টের বিশেষ ব্যবস্থা না থাকায় রোগী তার অন্যান্য রোগের চিকিৎসাও করতে পারছে না। আই সি ইউ বেড ১০টি থাকলেও ২টি অকার্যকর রয়েছে। অক্সিজেন সিলিন্ডারেরও অপর্যাপ্ততা রয়েছে। করোনার দ্বিতীয় দফা আক্রমনের মোকাবেলায় এক বছর যথেষ্ট সময় ছিল। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় অনিয়ম অব্যবস্থাপনা নিরসন করা যায়নি। ব্যাপক সংক্রমন বিবেচনায় হাসপাতালে করোনা রোগীর বেডের সংখ্যা এবং আইসিইউর সংখ্যা বাড়ানো দরকার। করোনায় জনগণের জীবন বাঁচাতে কর্তৃপক্ষের দ্রুত পদক্ষেপ জরুরী।

নেতৃবৃন্দ শীতলক্ষায় লঞ্চডুবিতে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক ও উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং নৌপথে অব্যবস্থাপনা দূর করা, দায়ীদের শাস্তি এবং নিহতদের আজীবন আয়ের সমান ক্ষতিপূরণের দাবি জানান।

0