৩ খুনের ঘটনায় বোন জামাই আব্বাসকে খোঁজছে পুলিশ (ভিডিওসহ)

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: একই পরিবারের তিনজনকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় ঘাতক হিসেবে সন্দেহ তালিকায় আব্বাসকে খোঁজছে পুলিশ। আব্বাস নিহত নাজনীন আক্তারের বড় বোনের স্বামী।

ওই ঘটনায় ঘাতকের নিজের মেয়েও সুমাইয়া(১৫) গুরুত্বর আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এসপি হারুন অর রশিদ এ তথ্য জানান।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জোনাকি ফিলিং স্টেশনে বুধবার রাতের ডিউটি শেষে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে বাসায় ফেরেন স্বামী সুমন। এরপর ঘরে ঢুকে তিনি স্ত্রী ও দুই সন্তানের রক্তাক্ত মরদেহ দেখতে পান। এরপর স্থানীয়রা বিষয়টি দেখে পুলিশে খবর দেন। এ সময় পুলিশের সহায়তার এক জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নিহতরা হলেন- সিদ্ধিরগঞ্জের জোনাকি ফিলিং স্টেশনের কর্মচারী সুমনের স্ত্রী নাজনীন আক্তার (২৮) মেয়ে নুসরাত (৬) ও খাদিজা (২)।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বলেন, `মূলত পারিবারিক কলহের জের ধরেই তিনটি হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আজ (বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টায় ঘটনাটি ঘটেছে। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে এ হত্যাকান্ডের ঘাতক হলেন আব্বাস। আব্বাসের সাথে তার স্ত্রীর বিরোধ ছিল। ওই বিরোধের কারণে জিদ করে আব্বাসের শ্যালিকার বাসায় স্ত্রী চলে আসে। সে একটি গার্মেন্টে চাকরি করে। বৃহস্পতিবার সকালে কারখানায় চলে যায়। শ্যালিকার সঙ্গে আলাপকালে কোন বিরোধের জের ধরেই শ্যালিকা ও তার দুই মেয়েকে হত্যা করেছে। আর আব্বাস তার প্রতিবন্ধী মেয়েকেও জখম করেছে। ইতোমধ্যে আব্বাসকে ধরতে অভিযান শুরু হয়েছে।’

এ সংক্রান্ত নিউজ পড়তে ক্লিক করুন

সিদ্ধিরগঞ্জে ২ মেয়েসহ মাকে গলা কেটে হত্যা

সিদ্ধিরগঞ্জে ৩ খুন, ঘটনাস্থলে আসছে ঢাকা সিআইডি’র টিম

৩ খুনের আলামত সংগ্রহে ব্যস্ত ফরেনসিক, রহস্য অনুসন্ধানে সিআইডি

0