৩ দিনের অভিযান সমাপ্ত: না.গঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীর তীরবর্তী দেড় শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ শীতলক্ষ্যা নদীর তীরবর্তী অবৈধ স্থাপনা দখলমুক্ত করতে টানা তিনদিনের উচ্ছেদ অভিযান শেষ করেছে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দর কতৃপক্ষ। বুধবার বেলা এগারোটা থেকে বিকেল নাগাদ রূপগঞ্জ উপজেলার চনপাড়া এলাকায় সুলতানা কামাল সেতু থেকে কাঞ্চণ সেতু পর্যন্ত শীতলক্ষ্যা নদীর পশ্চিমপাড়ে এ অভিযান চালায় সংস্থাটি। এসময় ১টি তিনতলা ভবন, ৪টি দুইতলা ভবন, ৩টি একতলা ভবন ও বেশ কয়েকটি টিনের বসতঘর সহ অর্ধ-শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এসময় বিআইডব্লিউটিএ’র জাহাজ অগ্রনী, একটি টাগ বোট, পুলিশ, আনসারসহ বিপুল সংখ্যক উচ্ছেদকর্মী উপস্থিত ছিল।

বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট দিপ্তীময়ী জামানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান চালায়। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএ’র নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ন-পরিচালক মো: গুলজার আলী, উপ-পরিচালক মো: শহীদুল্লাহ সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

এর আগে এই অঞ্চলে গত দুইদিনে শীতলক্ষ্যা নদীর দুই তীরে অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকটি পাকা ভবন সহ আরো শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দর কতৃপক্ষ। সে অভিযানে একটি তিনতলা ভবন, দুইটি স’মিল, একটি টেক্সটাইল মিল ও বেশ কয়েকটি দোকানপাট এবং বসতঘর ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। এছাড়া বৈধ কাগজপত্র ও সরকারি অনুমোদন না থাকায় মমিন টেক্সটাইল মিলকে দুই লক্ষ টাকিা জরিমানা করা সহ জব্দকৃত মালামাল নগদ প্রায় চার লক্ষ টাকায় বিক্রি করা হয়। অভিযান চলাকালে বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বসতবাড়ির মালিক জমির মালিকানা দাবী করলেও ভ্রাম্যমান আদালতকে তারা কোন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেনি।

বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট দিপ্তীময়ী জামান জানান, নদী অবৈধ দখলমুক্ত করতে পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হবে। অভিযানের একদিন আগে ওইসব এলাকাগুলোতে মাইকিং করে অবৈধ স্থাপনা ও মালামাল সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তারার অকৈধ স্থাপনা ও মালামাল সরিয়ে না নেয়ায় উচ্ছেদ করা হয়েছে। এর আরো প্রায় ছয় মাস আগে অবৈধ দখলদারদের নোটিশও প্রদান করা হয়।

বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ন-পরিচালক মো: গুলজার আলী জানান, শীতলক্ষ্যা নদীর ৫০১১টি আপত্তিকৃত সীমানা পিলার পুনঃস্থাপনে ইতিমধ্যে একটি প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে। নতুন সীমানা পিলার ৪০ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট হবে। এছাড়া সরকার ঢাকার চারিপাশের ২১০ কিলোমিটার নদীপথ রক্ষায় ওয়াকওয়ে বনায়ন করছে। ইতিমধ্যে নারায়ণগঞ্জে ২৫ কিলোমিটার ওয়াকওয়ে নির্মিত হয়েছে। আরো ১৭ কিলোমিটার ওয়াকওয়ের নির্মাণকাজ শীঘ্রই শুরু হবে। পর্যায়ক্রমে বাকী কাজ সম্পন্ন করা হবে।

তিনি আরো জানান, চলতি মাসে শীতলক্ষ্যা নদীতে এ ধরনের আরো দুইটি অভিযান সহ রমজান মাসেও উচ্ছেদ অভিযান চালানো হবে। উচ্চ আদালতের নির্দেশে নদী দখলমুক্ত করতে অবৈধ দখলদারদের কাউকে চাড় দেয়া হবে না।

২৩০
0