‘অগ্নিপরীক্ষা’ আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের উপজেলা গুলোতে ‘অগ্নিপরীক্ষা’য় অবতীর্ণ হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। ৪টি উপজেলায় চষে বেড়াচ্ছেন ডজন খানেক আওয়ামীলীগের মনোনয়ন যোদ্ধা। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের প্রতিযোগিতা কিছুক্ষেত্রে শৃঙ্খলার সীমা অতিক্রম করলেও একে ‘নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা’ বলছেন স্থানীয় নেতারা।

কোন কোন উপজেলায় ৪ জন নৌকা প্রতীকের দাবি নিয়ে দাঁড়িয়েছেন আওয়ামী লীগের নির্বাচনী মনোনয়ন বোর্ডের মুখোমুখি। নিজের যৌক্তিকতা তুলে ধরেছেন যার যার মতো করে। কিন্তু তৃণমূলের সমর্থন পেতে বেশির ভাগ উপজেলায় দলাদলি করা হচ্ছে দলাদলি।
আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী একজন জানান, যদি জননেতী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা দেন। তাহলে বন্দর উপজেলায় জয়ী হয়ে আসবো।
তবে একে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা বলে সান্ত¡না খুঁজছেন স্থানীয় শীর্ষ নেতারা। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের এক শীর্ষ নেতা বলেন, ইউনিয়ন, থানা, জেলা লেভেলের নেতারা-তো দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতি করছেন। প্রার্থী হবেন, প্রত্যাশা করেন।’

ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের পর এবারই প্রথম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন হচ্ছে দলীয় প্রতীকে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয়ের পর উপজেলা নির্বাচনের বৈতরণী পার হওয়া সহজ হবে ভেবে সবাই দলীয় প্রতীকের পেছনে ছুটছেন।
নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি উপজেলায় মধ্যে এবার ৪টি উপজেলায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়ে আবেদন করেছেন ১২ জন।
এর মধ্যে বন্দর ৩ জন, সোনারগাঁ ৪ জন, রূপগঞ্জ ৩ জন, আড়াইহাজার ২ জন।

প্রসঙ্গত, খসড়া তফসিল অনুযায়ী চতুর্থ ধাপের তফসিল হবে ২০ ফেব্রুয়ারি। এতে মনোনয়নপত্র দাখিল ৪ মার্চ, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ১২ মার্চ ও ভোটগ্রহণ ৩১ মার্চ। সর্বশেষ পঞ্চম ধাপের তফসিল হবে ১২ মে। এতে মনোনয়নপত্র দাখিল ২১ মে, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৯ মে ও ভোটগ্রহণ ১৮ জুন নির্ধারণ করা হয়েছে।