অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগের পর সহ সেক্রেটারীর পদত্যাগ

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দল নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর কমিটিতে অসাংগঠনিকভাবে বহিস্কৃত, মৃত, নিস্ক্রীয় ও চাঁদাবাজদের পদায়নের অভিযোগ ওঠায় জেলা কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন সহ সাধারণ সম্পাদক লুৎফা বেগম। 


রোববার ২১ নভেম্বর বিকেলে ঢাকা কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সেক্রেটারী বরাবরে এই পদত্যাগ পত্র পাঠান লুৎফা বেগম। তার প্রেরিত পদত্যাগ পত্রটি গ্রহণ করেছেন বিএনপি অফিসের স্টাফ বরকতউল্লাহ।

পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার কারণ হিসেবে লুৎফা বেগম উল্লেখ করেন, জেলা মহিলা দলের যে ৫১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে তাতে ৪/৫ জন ছাড়া বাকী কাউকেই তিনি চিনেন না। বাকী সদস্যরা কেউই বিগত দিনে আন্দোলন সংগ্রামে অংশ নেয়নি। এছাড়া জেলা কমিটির সভাপতি রহিমা শরীফ মায়া ও সেক্রেটারী রুমা আক্তার কেন্দ্রের কাছে যে অভিযোগ দিয়েছেন বলে গণমাধ্যমে এসেছে সেটিও ভুয়া। একটি অংশ দলের মধ্যে আওয়ামী লীগের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চায়, যা দলের জন্য ক্ষতিকারক। যে কারণে লুৎফা স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছেন বলে পদত্যাগ পত্রে উল্লেখ করেছেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, জাতীয়তাবাদী মহিলা দল নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর শাখার ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। ১৩ নভেম্বর কেন্দ্রীয় মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়। নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা দলের সভাপতি হিসেবে রহিমা শরীফ মায়া, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রুমা আক্তার এবং মহানগর মহিলা দলে সভাপতি দিলারা মাসুদ ময়না ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আয়শা আক্তার দিনা দায়িত্ব পালন করবেন। পরে নবগঠিত এই কমিটি দু’টি বাতিল করে সক্রিয়, ত্যাগী ও কারা নির্যাতিত পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের দিয়ে জেলা ও মহানগর মহিলা দলের কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছেন পদবঞ্চিতরা। এ বিষয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যবৃন্দ, মহাসচিব, দপ্তর সম্পাদক, মহিলা দল কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সেক্রেটারী, সাংগঠনিক টিম ও ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির পূর্বতন কমিটির আহবায়ক নুরুন্নাহার ও মহানগরের পূর্বতন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক সাজেদা খাতুন মিতা। অভিযোগে তারা উল্লেখ করে নতুন কমিটি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে সক্রিয়, ত্যাগী ও কারা নির্যাতিত নেতাকর্মীদের। মহানগর মহিলা দলের সহ দপ্তর সম্পাদক পদে স্থান পাওয়া এক নেত্রী মারা গেছেন ২ বছর আগে। এছাড়া মহানগর কমিটির সভাপতি ও সেক্রেটারী নৌকা ঘেষা নেত্রী বলে অভিযোগ রয়েছে।