আড়াইহাজারে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের ওপর হামলা, না.গঞ্জে পাপনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: পুলিশের গুলিতে নিহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সোনারামপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মো. নয়ন মিয়ার বাড়িতে পরিবারের সদস্যদের সাথে সাক্ষাৎ শেষে ঢাকায় ফেরার পথে আড়াইহাজারে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলের গাড়িবহরে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদল।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের সদ্য সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মাগফুর ইসলাম পাপনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক শরিফুল ইসলাম সজীব, আজহারুল হক নিপু, জেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহরিয়ার খান তুষার, জামাল হোসেন জয়, ফারুক মিয়া, সাবেক সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন ভুইয়া, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক স্কুল বিষয়ক সম্পাদক ইরফান ভূইয়া, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সদস্য ইমরান আহমেদ তুষার, হাবিবুর রহমান মাসুদ, জুনায়েদ মোল্লা জনি, সদর থানা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক ওয়াসিম আকরাম হৃদয়, বন্দর থানা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুন, সৈকত হাসান সোহাগ, ১নং সদস্য ফাইজুল আলম সিজান, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রদলের সদস্য মো. হাবিব, সরকারি কদম রসূল কলেজ ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক পাভেল আহম্মেদ, ৮নং ওয়ার্ড ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আল আমিন হোসেন দুর্জয়, ১১নং ওয়ার্ড ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রাসেল হোসেন সাহেদ, ছাত্রদল নেতা নাজমুল আলম জোয়ারদার, আব্দুর রহমান, আজহারুল ইসলাম নিরব, জাহেদ আলী খান শৈবাল, সাফিন চৌধুরী, নাহিদ আহমেদ অপু, মেহেদি হাসান আলামিন, জনি, বলাই, সোহাগ, রাকিবুল হাসান, মমিনুল ইসলাম, মো. সিফাত, অনিক, সৌমিক, আবির, সৌরভ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, বুধবার (২৩ নভেম্বর) আড়াইহাজারে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের হামলার শিকার হয়েছেন বিএনপি ও ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতারা। এসময় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলসহ নেতারা হামলায় আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

বিকেলে উপজেলার আড়াইহাজার বাজারস্থ আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এরআগে দুপুরে নিহত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলা ছাত্রদলের নেতা নয়নের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলসহ বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা। বিকেলে এ পথে তারা ফিরছিলেন ঢাকার দিকে। এসময় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে ছাত্রদলের বেশ কয়েকজন নেতা আহত হন। অন্যরা দৌঁড়ে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নেন।