আড়াইহাজারে ছাত্রলীগের ব্যাপক তান্ডব, মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকসহ আহত-২

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার আড়াইহাজার বাজারে বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন অনুর বাড়িতে ও তার মালিকানাধীন মার্কেটে দু দফা ব্যাপক তান্ডব চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মী নামধারীরা। এসময় হামলায় বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন অনুর স্ত্রী মহিলা দল ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক পারভীন আক্তার উপরের হামলায় মাথায় ৪ টি সেলাই ও অনুর ছোট ভাই রফিকুল ইসলামকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। গুরুত্বর আহত হয়েছে। এসময় হামলাকারীদের প্রতিহত করতে পুলিশ লাঠিচার্জ ও গুলি ছুড়লে ছাত্রলীগের ৩ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে পুলিশ বলছে দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময়ে গোলাগুলির ঘটনা ঘটলেও পুলিশ গুলি ছুড়েনি। ওইসময় উভয়পক্ষের গুলিতে ৩ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে দাবি পুলিশের। ঘটনাস্থল থেকে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
ঘটনাসূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার আড়াইহাজার বাজার এলাকার বাসিন্দা বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন অনু রোববার ২৮ নভেম্বর বিকেলে আড়াইহাজার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এতে ছাত্রলীগ নেতা ইমতিয়াজ হোসেন শাওনের নেতৃত্বে ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে তার ছোট ভাই রফিকুলের পথরোধ করে আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রফিকুল ইসলামকে বেধড়ক মারধর করে সঙ্গে থাকা ৭ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ করেন। ৭ লাখ টাকা ছিনতাই ও রফিকুল ইসলামকে মারধরের প্রতিবাদে আড়াইহাজার থানায় একটি অভিযোগ দায়েরের পাশাপাশি রোববার সন্ধ্যায় আড়াইহাজার বাজারে বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন অনু ও তার স্ত্রী মহিলা দল ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক পারভীন আক্তারসহ তাদের অনুগামী বিএনপি নেতাকর্মীরা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রাতে ছাত্রলীগ নেতা নামধারী ইমতিয়াজ হোসেন শাওনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী অনুর বাসভবন ও মার্কেটে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করতে থাকে। তাদেরকে বাধা দিতে এগিয়ে আসলে মহিলা দল ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক পারভীন আক্তারকেও বেধড়ক মারধর করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে স্বল্প সংখ্যক পুলিশ শত শত ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদেও নিবৃত করতে বাধ্য হয়ে শেষতক ব্যাপক লাঠিচার্জ ও গুলি ছুড়ে হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ওই সময় গুলিতে ৩ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে জানা গেছে।
মার্কেটের দোকানি আল আমিন মিয়া জানান, পুলিশ গুলি না ছুড়লে সেখানে নিশ্চিত হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে যেতে পারতো। তবে পুলিশ খুব স্বল্প সংখ্যক ছিলো।
এ বিষয়ে হামলা শিকার বিএনপি নেতা আনোয়র হোসেন অনু জানান, আমার স্ত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছে। ভাই রফিকের অবস্থা ভালো না। এর মধ্যে শুনলাম আমাদেও বিরুদ্ধে উল্টো মামলা নেয়া হয়েছে।
তবে আড়াইহাজার থানার ওসি আনিচুর রহমান মোল্লা জানান, আনোয়ার হোসেন অনুর ছোট ভাই রফিকুলের সঙ্গে পূর্বশত্রুতার জের ধরে বিকেলে ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মী তাকে মারধর করেছে বলে শুনেছি। ওই ঘটনার রেশ ধরে রাতে ওই ঘটনার সূত্রপাত। ওইসময় ৩ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে শুনেছি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। ঘটনাস্থল থেকে ২ জনকে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।
এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ জায়েদুল আলম জানান, এ ঘটনা মোট তিনটি মামলা হয়েছে। দুপক্ষের সংঘর্ষে দুপক্ষের বিরুদ্ধে ও পুলিশ বাদী হয়ে মোট তিনটি মামলা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ গুলি ছুড়তে বাধ্য হয়েছে। বাজার এলাকায় অন্ধকার ছিলো। কারা আহত হয়েছে তা খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।