আড়াইহাজারে শিশু ধর্ষণে আপোষ মিমাংসার চেষ্টা, ইউপি সদস্যসহ গ্রেপ্তার ২

0

আড়াইহাজার করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: শিশু ধর্ষণের ঘটনায় আপোষ মিমাংসার চেষ্টা করায় আড়াইহাজারের ইউনিয়ন পরিষদের এক সদস্যসহ ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের টেকপাড়া থেকে বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। পরে বিকালে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আসামীরা হলেন- আড়াইহাজারের সাতগ্রাম ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের সদস্য রহিজউদ্দিন ও এলাকার মাতাব্বর আবুল হোসেন।

শিশুটির পরিবারের সদস্যদের বরাদ দিয়ে পুলিশ জানান, গত ২ আগস্ট বান্ধবীর বাড়ীতে যাওয়ার পথে শিশুটিকে টেকপাড়া গ্রামের জুম্মানের ছেলে তাজিমুল (৪৫) জোড় করে টেনে হিচরে একই গ্রামের দেলোয়ারা বেগমের পরিত্যক্ত বসত ঘরে নিয়ে ধর্ষন করে। পরে ধর্ষিতার ডাক চিৎকারে বাড়ীর মালিক দেলোয়ারা বেগম ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে। এ সময় ধর্ষনকারী পালিয়ে যায়। এই ঘটনা মিমাংসার জন্য সাতগ্রাম ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রহিজউদ্দিন ও এলাকার মাতাব্বর আবুল হোসেন ধর্ষিতার পরিবারকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখায় এবং থানায় মামলা করতে নিষেধ করেন। ২ দিন পর এই ব্যাপারে ধর্ষিতার নানা সফিকুর রহমান ৫ আগস্ট সকালে আড়াইহাজার থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করেন। মামলার খবর পেয়ে ইউপি সদস্য ও মাতাব্বর আবারো মামলা আপোষ মিমাংসার প্রস্তাব দিলে থানা পুলিশ তাদের আটক করে নারায়ণগঞ্জ কোর্টে প্রেরণ করে।

আড়াইহাজার থানার ওসি আনিচুর রহমান জানান, বাধাঁ দেওয়ার অভিযোগে ইউপি সদস্য ও মাতাব্বারকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং ধর্ষককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ইউপি সদস্য ও মাতাব্বারকে এই মামলায় আসামী করা হয়েছে। তাদের কারণে ধর্ষণের আলামত নষ্ট হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।

0